বিকাশে মুক্তিপণ, মণিরামপুরে এজেন্টসহ নারী আটক

আপডেট: 01:29:06 11/12/2017



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : বিকাশের মাধ্যমে দুই লক্ষাধিক টাকা মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে সিলেটের হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল থানায় দায়ের করা মামলায় মণিরামপুরের বিকাশ এজেন্টসহ এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিকেশন (পিবিআই)।
গত শনিবার সন্ধ্যায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হবিগঞ্জ জেলার পিবিআই ইনসপেক্টর মাইনুল ইসলাম মণিরামপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাদের আটক করেন। আটক ব্যক্তিরা হলেন, পৌর এলাকার দুর্গাপুরের ডা. আব্দুল আজিজের ছেলে এনামুল হক রাজু ও লিবিয়া প্রবাসী রুহুল আমিনের স্ত্রী নাজমা খাতুন।
ইনসপেক্টর মাইনুল ইসলাম বলেন, ‘কাজের সন্ধানে বছর তিনেক আগে বাহুবল উপজেলার আব্দুল আওয়ালের ছেলে সিজিল লিবিয়ায় যায়। সেখানে সিরাজগঞ্জের জনৈক রহুল আমিনের সাথে পরিচয় হয় সিজিলের। পরিচয়ের সূত্র ধরে সিজিলকে কৌশলে জিম্মি করে দশ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে রুহুল আমিন। জিম্মি দশায় মুক্তিপণের দাবিতে সিজিলকে হত্যার হুমকিসহ নির্যাতন করে রুহুল আমিন। এক পর্যায়ে সিজিল বাড়িতে ফোন করে রুহুল আমিনের দেওয়া বাংলাদেশের বিকাশ নম্বরে মুক্তিপণের টাকা দিতে বলে। ছেলের প্রাণ রক্ষার্থে রুহুলের দেওয়া বিকাশ নম্বরে দুই লাখ দশ হাজার টাকা পাঠায় সিজিলের বাবা। পরে সিজিলের পরিবার জানতে পারে, মুক্তিপণের টাকা পাঠোনো নম্বরটি মণিরামপুরের রাজুর। আর সেই টাকা রাজুর দোকান থেকে তুলে নেয় নাজমা।’
এই ঘটনায় সিজিলের বাবা আব্দুল আওয়াল গত ৬ ডিসেম্বর হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল থানায় দশজনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। যার তদন্তভার হবিগঞ্জের পিবিআইয়ের ওপর দেন আদালত। সেই মামলার সূত্র ধরে রাজু ও নাজমাকে আটক করেছে পুলিশ।
আটক দুইজনকে নিয়ে রাতেই হবিগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হয় পুলিশ। রোববার তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান ইনসপেক্টর মাইনুল ইসলাম।
অভিযানে সহায়তাকারী মণিরামপুর থানার এসআই জুয়েল রানা বলেন, ‘বিষয়টি আমাদের থানার কোনো কিছু না। আমরা শুধু আটকে সহযোগিতা করেছি।’

আরও পড়ুন