নড়াইলে কিশোরের বিরুদ্ধে ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট: 04:58:33 19/03/2018



img

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলে সপ্তম শ্রেণির এক মাদরাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ করা হচ্ছে মনিরুল কাজী (১৬) নামে এক কিশোরের বিরুদ্ধে। ভিকটিমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
অভিযুক্ত মনিরুল সংশ্লিষ্ট মাদরাসার প্রাক্তন শিক্ষার্থী। সে সদর উপজেলার বোড়ামারা গ্রামের হাই কাজীর ছেলে।
পরিবারটির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে, নড়াইল সদর উপজেলার একটি গ্রামের ওই ছাত্রী গত ১৬ মার্চ সকাল আটটার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে ছাগল নিয়ে মাঠে যাচ্ছিল। এ সময় একই গ্রামের মনিরুল কাজী ও লিমন তাকে জোর করে একটি কারে তুলে গোপালগঞ্জ নিয়ে যায়। সেখানে আরো দুইজনের সহযোগিতায় মনিরুল কাজী তাকে ধর্ষণ করে। ধর্ষিত ছাত্রীকে ওই রাতেই বাড়ির পাশে ফেলে রেখে চলে যায় মনিরুল ও তার সহযোগীরা।
আজ সকালে ওই ছাত্রীকে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার মা এঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।
অভিযোগ উঠেছে, স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ বেশ কিছু লোক বিষয়টিকে ধামাচাপা দিতে উঠেপড়ে লেগেছেন। তারা অপ্রাপ্ত বয়স্ক ওই দুইজনকে বিয়ে দিয়ে বিষয়টি মীমাংশা করতে চাইছেন। তাদের আশ্বাসে ওই ছাত্রীর পরিবার এখনো থানায় মামলা করেনি।
তবে মাইজপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে এর সাথে আমি জড়িত নই।’
অভিযুক্ত মনিরুল কাজীর ভাষ্য, ‘সাংবাদিকদের সাথে কথা হয়ে গেছে। এখন আর কী বলব?’
পরে ব্যস্ত আছি বলে ফোন কেটে দেয় সে।
সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আ ফ ম মশিউর রহমান বাবু সোমবার দুপুরে বলেন, ওই মাদরাসার ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন সোমবার দুপুরে বলেন, বিষয়টি জানার পর অভিযোগ দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন