মেধাবী রোমানকে বাঁচাতে দশ লাখ টাকা দরকার

আপডেট: 01:58:51 14/10/2017



img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : মহেশপুর উপজেলার এক দরিদ্র পরিবারের সন্তান আব্দুল্লাহ আল রোমান। পড়াশুনা করেন যশোরের একটি প্রতিষ্ঠানে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে। স্বপ্ন দেখছিলেন পড়াশুনা শেষে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে চাকরি করে সংসারের অভাব ঘোচানোর।
কিন্তু হায়! মারণ ব্যাধি ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে তার সব স্বপ্ন ধুলোয় মিশে গেছে। এখন তিনি ধীরে ধীরে মৃত্যুর পথে এগিয়ে যাচ্ছেন। বাঁচার আকুতি জানিয়ে তিনি সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আবেদন করেছেন।
উপজেলার মির্জাপুর কুমিল্লাপাড়ার দিনমজুর মমিনুর রহমানের একমাত্র রোমান। মাথার মধ্যে থাকা টিউমারে ক্যানসারের বিস্তৃতি ঘটেছে তার। কলকাতার পিয়ারলেস হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন এই মেধাবী ছাত্র। সেখানকার ডাক্তাররা বলেছেন, তাকে বাঁচাতে যে চিকিৎসা দিতে হবে, তার খরচ কমপক্ষে দশ লাখ টাকা। কিন্তু রোমানের বাবা মমিনুর রহমানের একমাত্র সম্বল বসতভিটা।
মোমিনুর বলেন, ‘আমার একমাত্র ছেলে রোমানকে নিয়ে আমাদের বড় আশা ছিল। ছেলে মানুষের মতো মানুষ হবে- সেই আশায় পরের ক্ষেতে কামলা দিয়ে তাকে লেখাপড়া শিখাচ্ছিলাম। কিন্তু আজ আমার ছেলে মরতে বসেছে।’
‘সমাজে অনেক ধনী লোক আছে। তারা যদি আমার দিকে একটু নেকনজর দেয়, তাহলে ছেলেটাকে বাঁচাতে পারি,’ বলছিলেন অসহায় বাবা মোমিনুর।
মহেশপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাই অসুস্থ রোমানের চিকিৎসার জন্য ব্যক্তিগতভাবে ২০ হাজার টাকা দিয়েছেন। তিনি ছেলেটির চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।
রোমানকে সাহায্য করা যাবে সোনালী ব্যাংক মহেশপুর শাখার ০১০২৬২০৪ নম্বর অ্যাকাউন্টে।