মোচিকে শ্রমিক অসন্তোষ, এমডি অবরুদ্ধ

আপডেট: 07:31:04 08/11/2018



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : দুই মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে মোবারকগঞ্জ সুগারমিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ইউসুফ আলী শিকদারকে অবরুদ্ধ করে রাখেন শ্রমিক-কর্মচারীরা। এ সময় তারা কাজ বন্ধ রেখে বিক্ষোভ সমাবেশও করেন।
পরে চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের নেতাদের আশ্বাসে শ্রমিকরা বিক্ষোভ কর্মসূচি বন্ধ করে কাজে ফিরে যান। বৃহস্পতিবার সকাল নয়টায় এ ঘটনা ঘটে।
এদিকে, বেশ কয়েক মাস ধরে মিলের শ্রমিকদের বেতনের বিপরীতে শতকরা আট থেকে ১২ টাকা হারে কেটে নেওয়া হচ্ছে। এ নিয়ে মিলে কর্মরত-শ্রমিকদের মধ্যে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। তাদের অভিযোগ, মিলের অসাধু ক্ষমতাধর ইউনিয়ন নেতা ও কর্মকর্তাদের যোগসাজসে বেতন থেকে টাকা কেটে রাখা হচ্ছে। এখন তারা বেতনের বিপরীতে আর কোনো টাকা মিল কর্তৃপক্ষকে দিতে চান না।
শ্রমিকরা দাবি করেন, গত সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর ২০১৮ মাসের বেতন তারা এখনো পাননি। বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে তাদের। মিল কর্তৃপক্ষকে বারবার তাগাদা দিলেও তারা কর্ণপাত করছেন না। বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ফ্যাক্টরির সামনে ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউসুফ আলী শিকদারকে তারা অবরুদ্ধ করে রাখেন। এ সময় তারা নানা ধরনের ¯েøাগান দিতে থাকেন।
শ্রমিকরা অভিযোগ করেন, এর আগে আগস্ট মাসে তারা বেতনের বিপরীতে শতকরা আট শতাংশ হাতে টাকা দিতে বাধ্য হয়েছেন। তারা বেতনের বিপরীতে কোনো টাকা মিল কর্তৃপক্ষকে দিতে চান না।
মোচিক শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক কবির হোসেন জানান, শ্রমিকরা গত দুই মাস ধরে বেতন পান না। প্রায় এক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী বেতন না পেয়ে পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। বৃহস্পতিবার সকালে শ্রমিকরা কাজ বন্ধ করে বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন এবং মিলের এমডি-কে অবরুদ্ধ করে রাখেন।
তিনি আরো বলেন, ‘পরে শ্রমিকনেতারা গিয়ে এমডি-কে সেখান থেকে নিয়ে আসে এবং আগামী এক সপ্তাহ সময় নেওয়া হয়। শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা বেতনের বিষয়ে ঢাকায় ফেডারেশনে মিটিং করছেন। এর মধ্যে শ্রমিকদের বেতনের ব্যবস্থা করা হবে।’
সুগারমিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউসুফ আলী শিকদার বলেন, ‘শ্রমিকরা দুই মাসের বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে। আমি জানিয়েছি, এই মুহূর্তে বেতন দিতে পারবো না। কারণ করপোরেশনের হাতে টাকা নেই। মোচিক গুদামে চিনি আছে। চিনি বিক্রি না হওয়া পর্যন্ত বেতন দেওয়া সম্ভব না।’