বাঁচতে পারলো না বৃদ্ধার ‘ধর্ষক-খুনিও’

আপডেট: 04:03:48 17/07/2018



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের পল্লীতে বৃদ্ধাকে ধর্ষণে অভিযুক্ত সেই ইরাদত খানও বাঁচতে পারলো না। গতরাতে তার মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ বলছে, গণপিটুনির শিকার হয়ে মারা গেছে ইরাদত।
ইরাদতের বিরুদ্ধে ৭০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধাকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ ওঠে কালই। এর আগে একটি বাচ্চা মেয়েকে ধর্ষণের পর খুন করাসহ নৈতিক স্খলনজনিত নানা অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে।
যশোরের বসুন্দিয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ হায়াৎ মাহমুদ মঙ্গলবার সকালে ইরাদতের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন।
এসআই হায়াৎ মাহমুদ জানান, ১৬ জুলাই দুপুরে ইরাদত ওরফে ইরাদ প্রতিবেশী এক বৃদ্ধাকে (৭০) ভাত রান্নার কথা বলে বাড়িতে ডেকে নেয়। এরপর বিকেল থেকে ওই বৃদ্ধাকে খুঁজে না পাওয়ায় প্রতিবেশীরা ইরাদকে সন্দেহ করে। স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদের মুখে সে অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে থাকে। এতে উত্তেজিত হয়ে লোকজন তাকে মারপিট করে। মারপিটের এক পর্যায়ে সে স্বীকার করে যে, ওই বৃদ্ধার লাশ তার বাড়ির পাশে মুরগির ঘরে প্লাস্টিকের বস্তার মধ্যে রয়েছে।সন্ধ্যায় ওই প্লাস্টিকের বস্তার মধ্যে থেকে বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করা হয়। আর গণপিটুনির শিকার ইরাদকে এলাকাবাসী স্থানীয় চিকিৎসক আব্দুল হাইয়ের কাছে নিয়ে যান। রাত সাড়ে দশটার দিকে মুমূর্ষু অবস্থায় পুলিশ তাকে সেখান থেকে যশোরে নিয়ে আসে।
এসআই হায়াৎ মাহমুদ জানান, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
তিনি জানান, ইরাদের সারাদেহে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার ডান পা ভাঙা ছিল।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ইরাদ এলাকায় খুব খারাপ প্রকৃতির লোক বলে পরিচিত। বছরখানেক আগে একই এলাকার পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা করার অভিযোগে গ্রেফতার হয় সে। মাস ছয়েক আগে সে হাইকোর্ট থেকে জামিনে বের হয়। এরপর সে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে।
তিনি জানান, তার বাবা-মাকে খবর দেওয়া হয়েছে। তারা রাজি না হলে মৃত্যুর ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়েই মামলা করবে।
নিহতের নানি নূরজাহান সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইরাদের বাবা-মা ফরিদপুরে তাদের এক আত্মীয়ের বিয়েতে গেছেন পাঁচ দিন আগে। ১৬ জুলাই কী ঘটেছে- তা আমি জানিনে। জামাই-মেয়েকে খবর দেওয়া হয়েছে, তারা যশোরের পথে।’
যশোর জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র ব্রাদার মোফাজ্জেল হোসেন ডাক্তার মো. আব্দুর রশিদের উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, গত রাত সাড়ে ১২টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। হাসপাতালে আনার আগেই তিনি মারা যান। কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে- ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ছাড়া বলা যাবে না বলে ডাক্তার জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন