খুলনায় গুলি বোমা, আওয়ামী লীগ নেতা আক্রান্ত

আপডেট: 01:11:12 20/05/2018



img

খুলনা অফিস : খুলনা সিটি করপোরেশনের সাত নম্বর ওয়ার্ডে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এতে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনাম মুন্সি ও বাবু নামে দুজন রাবার বুলেটবিদ্ধ হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় র‌্যাব, পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যার পর সাত নম্বর ওয়ার্ডে দফায় দফায় গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে নগর গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে একটি দেশি পিস্তলসহ ইমরান নামে এক যুবককে আটক করে। এ সময় যমুনা গেট এলাকা থেকে সানি, সুমনসহ আরো ছয় যুবককে আটক করে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে রাবার বুলেটের বিস্ফোরিত তিনটি খোসা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা বিভাগীয় ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এনাম মুন্সি ইফতার শেষে হাজিবাড়ি-সংলগ্ন মসজিদে নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন। এ সময় শওকত হোসেন সোনা, রুবেল, ইকতিয়ারসহ আরো ৩-৪ জন যুবক এনাম মুন্সিকে মারধর করতে থাকে। এনাম প্রাণ রক্ষা করতে দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। তবে এগুলো ছিল রাবার বুলেট।
পুলিশের একটি সুত্র জানায়, মেঘনা গেট-সংলগ্ন মৃত ওয়াদুদ মুন্সি নামে সাবেক এক পুলিশ সদস্যের বাড়িতে হামলা চালিয়ে তার বাড়িঘর ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাত নম্বর ওয়ার্ডে প্রতিপক্ষ দুটি গ্রুপ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।
এলাকাবাসী জানান, সন্ধ্যা সাতটা থেকে ১০-১৫ রাউন্ড গুলি, ককটেল বিস্ফোরণের শব্দে এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
এনাম মুন্সি গুলিবিদ্ধ হওয়ার প্রতিবাদে রাত নয়টায় সাত নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। কিন্তু র‌্যাব সদস্যদের হস্তক্ষেপে মিছিল বন্ধ হয়। বর্তমানে সাত নম্বর ওয়ার্ডে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
এ বিষয়ে উপ-অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সোনালী সেন জানান, ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্রসহ ছয়জনকে আটক করা হয়েছে।

আরও পড়ুন