‘কোথাও কেউ নেই’ ‘বহুব্রীহি’ ‘সংশপ্তক’ ইউটিউবে

আপডেট: 02:33:07 22/03/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : গত শতকের আশি ও নব্বইয়ের দশকে ধারাবাহিকগুলো যখন বিটিভিতে প্রচারিত হতো, তখন থমকে যেত পথঘাট। পাড়া-মহল্লার সব বয়সী মানুষই বসে যেত টিভির সামনে। শুধু তা-ই নয়, নাটকের চরিত্র বাকের ভাইয়ের ফাঁসির বিরুদ্ধে ওই সময় রাস্তায়ও নেমেছে মানুষ। হয়েছে মিছিলও। বলা হচ্ছে ‘কোথাও কেউ নেই’, ‘বহুব্রীহি’ ও ‘সংশপ্তক’-এর কথা। বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত এই ধারাবাহিকগুলো এখন দেখা যাচ্ছে ইউটিউবে। বিভিন্ন ব্লগ ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নাটকগুলোর লিংক চাইতেন এই সময়ের তরুণেরা। এবার বুঝি তরুণদের হাহাকার মিটলো। কারণ, এরই মধ্যে বিটিভির সোশ্যাল মিডিয়া উইং থেকে পরিচালিত ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড হয়েছে এই তিন ধারাবাহিক।
প্রথম দুটি নাটকের রচয়িতা জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। আর ‘সংশপ্তক’ নাটকটি শহীদুল্লাহ কায়সারের উপন্যাস থেকে ইমদাদুল হক মিলনের নাট্যরূপ দেওয়া।
বরকত উল্লাহর পরিচালনায় ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকটিতে অভিনয় করেছেন আসাদুজ্জামান নূর, সুবর্ণা মুস্তাফা, আবদুল কাদের, মাহফুজ আহমেদ, আফসানা মিমি, হুমায়ূন ফরীদি, মোজাম্মেল হোসেন, সালেহ আহমেদ, আবুল খায়ের, নাজমা আনোয়ার, শহীদুজ্জামান সেলিম।
‘তুই রাজাকার’ ও ‘আপনি হলেন গিয়ে বটবৃক্ষ’ সংলাপের কারণে প্রবল জনপ্রিয় হওয়া বহুব্রীহি নাটকটির প্রযোজক ছিলেন নওয়াজিশ আলী খান। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন আলী যাকের, আবুল হায়াৎ, আসাদুজ্জামান নূর, আফজাল হোসেন, লুৎফুন্নাহার লতা, লাকী ইনাম, আবুল খায়ের, আফজাল শরীফ প্রমুখ।
আর ‘কানকাটা রমজান’ খেতাবপ্রাপ্ত জনপ্রিয় অভিনেতা হুমায়ূন ফরীদি অভিনীত ‘সংশপ্তক’ নাটকটির পরিচালক ছিলেন আবদুল্লাহ আল মামুন, আল মনসুর ও মোহাম্মদ আবু তাহের। এতে হুমায়ূন ফরীদি ছাড়াও অভিনয় করেছেন ফেরদৌসী মজুমদার, রাইসুল ইসলাম আসাদ, মুজিবুর রহমান দিলু, মামুনুর রশীদ ও সুবর্ণা মুস্তাফা। সব কটি নাটকের সবগুলো পর্বই এখন দেখা যাচ্ছে এই চ্যানেলে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর চালু হয়েছে বিটিভির ইউটিউব চ্যানেল। কপিরাইট-সংক্রান্ত ঝামেলায় পড়ে দুই দফা বন্ধ হয়ে যায় চ্যানেলটি। এখন BTV SMW 1 নামে চলছে চ্যানেলটি। তবে চ্যানেলটিতে শুধু নাটকই নয়, পুরনো ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, গানের অনুষ্ঠান, স্বাস্থ্য, কৃষি ও শিক্ষামূলক অনুষ্ঠান আপলোড করা হয়েছে। দুই মাস বয়সী নতুন চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার এরই মধ্যে পাঁচ হাজারের কাছাকাছি।
জনপ্রিয় তিনটি নাটক ইউটিউবে দেওয়া প্রসঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম শাখার (সোশ্যাল মিডিয়া উইং) প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো. মাহফুজার রহমান বলেন, ‘আমরা ধীরে ধীরে সবগুলো জনপ্রিয় নাটকই দেবো। আর ইউটিউব এমন একটা মাধ্যম, যেখানে দর্শক যেকোনো স্থান থেকে নাটকটি দেখে নিতে পারবেন। এর আগে অনেকেই একটি-দুটি পর্ব বেআইনিভাবে আপলোড করলেও সব পর্ব এবারই প্রথম দেখতে পারবেন দর্শক।’
তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম শাখা সম্পর্কে বলেন, অল্প কিছু লোকবল নিয়ে গত বছরের শেষ দিকে শাখাটি চালু হয়েছে। এই শাখার কাজই হলো, তরুণ প্রজন্মের কাছে বিটিভিকে পৌঁছে দেওয়া। ইউটিউব চ্যানেলটি ধীরে ধীরে সেই লক্ষ্যের দিকে এগোচ্ছে।
সূত্র : প্রথম আলো