আওয়ামী লীগ নেতা মিলনের লাশ উত্তোলন

আপডেট: 01:01:11 15/12/2017



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে নিজ দলের ক্যাডারদের হাতে নিহত বসুন্দিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিলন সরদারের (৪০) লাশ কবর থেকে তোলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী নাজিব হাসানের উপস্থিতিতে পুলিশ লাশটি তোলে।
নিহতের ভাই শিলন সরদার সুবর্ণভূমিকে জানান, গত ৬ নভেম্বর বিকেলে যশোর সদর আসনের এমপি কাজী নাবিল আহমেদপন্থীদের দড়াটানার সমাবেশে মিলন সরদার মিছিল নিয়ে আসেন। জনসভা শেষে বাড়ি ফেরার পথে শহরের হাজী মুহম্মদ মহসিন রোডে সন্ত্রাসীরা মিলনকে কুপিয়ে আহত করে। প্রথমে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পরে ঢাকা নিয়ে যাওয়া হয়। ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৫ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে তিনি মারা যান। লাশ বাড়িতে এনে জানাজা শেষে দাফন করা হয়।
‘সে সময় লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়নি। পরে আমাদের আবেদনের ভিত্তিতে পুলিশ লাশ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্ত করছে,’ বলেন শিলন।
যশোর সদর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইনসপেক্টর মতিউর রহমান সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী নাজিব হাসানের উপস্থিতিতে পারিবারিক কবরস্থান থেকে লাশ তুলে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছি। কারণ নিহত মিলন সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।’
‘তার ওপর হামলার ঘটনায় মিলন নিজে বাদী হয়ে কোতয়ালী থানায় একটি মামলা করেছিল। নিহতের পরিবার গত ৯ ডিসেম্বর লাশ তুলে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতে আবেদন করে। আদালতের নির্দেশে আজ বেলা ১২টার দিকে লাশ কবর থেকে তোলা হয়।’
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী নাজিব হাসান সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘আদালতের নির্দেশে আমার উপস্থিতিতে সদর উজেলার পদ্মবিলা গ্রামের কবর থেকে মিলনের লাশ তোলা হয়েছে।  কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে তা পরিষ্কার হবে।’

আরও পড়ুন