যশোরে বিচারকের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ

আপডেট: 09:57:43 23/11/2017



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের সদ্য বদলি হওয়া স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক নিতাইচন্দ্র সাহার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে একটি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।
বৃহস্পতিবার শহরের বেজপড়ার মৃত মাদারচন্দ্র বৈরাগীর ছেলে আইনজীবী সহকারী নির্মলকান্তি বৈরাগী এ অভিযোগ দেন।
জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সিনিয়র বিচারক মো.আমিনুল ইসলাম আগামী ২৮ নভেম্বর অভিযোগ গ্রহণের বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন বাদীপক্ষের আইনজীবী মাহমুদ হাসান বুলু।
এদিকে আদালতে এ অভিযোগ দেওয়া হলে ঘুষ প্রদানকারী ও নেপথ্যে কারা আছে তার তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান আইনজীবীরা। এ নিয়ে আজ আদালতে কিছুটা হই-হট্টগোল শুরু হয় বলে জানিয়েছেন সেখানে তখন উপস্থিতরা।
নির্মলকান্তি বৈরাগী অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, ১৯৮৭ সাল থেকে তিনি যশোরে আইনজীবী সহকারী হিসেবে কাজ করেন। ১৯৯২ সালে বিচারক নিতাইচন্দ্র সাহা দেওয়ানি আদালতে কর্মরত থাকা অবস্থায় তার সঙ্গে পরিচয়। তিনি দীর্ঘদিন পরে যশোর স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক হয়ে আবার যশোর ফিরে আসেন। বিচারক তাকে ডেকে মামলার ব্যাপারে যোগাযোগ করলে প্রত্যাশিত ফল পাওয়া যাবে বলে জানান। এরপর তিনি এসসি ৮৭/৯৮ মামলার তদবিরকারক ও আসামিদের স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এ মামলায় প্রত্যাশিত ফল পেতে তিনি তাদের সঙ্গে দশ লাখ টাকা চুক্তি করেন। এ টাকা তিনি দুই দফায় বিচারক নিতাইচন্দ্র সাহাকে দেন। তিনি এ টাকা নিয়ে আরো দশ লাখ টাকা দাবি করেন। বাকি দশ লাখ টাকা না দেওয়ায় এ মামলার রায়ে বিচারক আসামিদের যাবজ্জীবন সাজা দেন। পরে টাকা ফেরত চাইলে তিনি টাকা না দিয়ে ঘোরাতে থাকেন। টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এ অভিযোগ দিয়েছেন।
স্পেশাল জজ আদালত সূত্রে জানা গেছে, স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক নিতাইচন্দ্র সাহা সম্প্রতি পটুয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক হিসেবে বদলি হয়েছেন।

আরও পড়ুন