‘চুল কর্তন’, স্বামী শ্বশুর শাশুড়ি দেবর গ্রেফতার

আপডেট: 04:14:34 14/11/2018



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের মণিরামপুরে সালমা খাতুন (৩২) নামে এক গৃহবধূকে চুল কেটে নির্যাতনের ঘটনার মামলায় স্বামী, শ্বশুরসহ একই পরিবারের চারজনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।
বুধবার ভোররাতে থানার এসআই ফিরোজ আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার জলকর রোহিতা গ্রাম থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন, জলকর রোহিতা গ্রামের জিনতুল্ল্য বিশ্বাসের ছেলে ও সালমার শ্বশুর মতলেব বিশ্বাস (৬০), মতলেব বিশ্বাসের স্ত্রী তহমিনা বেগম (৫৫), তার দুই ছেলে রোস্তম হোসেন মন্টু (৪২) এবং বাবুল হোসেন (৩৫)।
সালমা জানান, প্রায় ২০ বছর আগে মন্টুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের জেরে পরিবারের অমতে বিয়ে হয় তার। কিন্তু মন্টুর পরিবারের কেউ তাকে মেনে নেননি। সালমা-মন্টু দম্পত্তির ছয় বছর বয়সী সামিআল ইসলাম নামে একটি ছেলেসন্তান রয়েছে।
সালমা বলেন, ‘বিয়ের পর থেকে মন্টু, তার বাবা-মা ও ভাই বাবুল হোসেন আমার ওপর অমানবিক নির্যাতন চালাতে শুরু করে। গত ২৫ জুলাই আমাকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। ওই সময় তারা বটি দিয়ে আমার চুল কেটে দেয়। এই ঘটনায় গত ৭ আগস্ট আমি বাদী হয়ে মন্টু, তার বাবা-মা ও ভাইকে আসামি করে আদালতে মামলা করি।’
মণিরামপুর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই তপনকুমার সিংহ বলেন, ‘নারী নির্যাতন মামলার ওয়ারেন্টমূলে মতলেব, তার স্ত্রী ও দুই ছেলেকে গ্রেফতার করা হয়। আসামিদেরকে বুধবার দুপুরে আদালতে হাজির করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন