যশোর কারা কম্পাউন্ডে বোমা বিস্ফোরণ, আহত ১

আপডেট: 08:40:53 21/02/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : বুধবার দুপুরে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার কম্পাউন্ডে অবস্থিত কোয়ার্টারের পাশে বোমা বিস্ফোরণে জাহিদুল বিশ্বাস ওরফে কালু (৪০) নামে এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন।
আহত কালুকে কারা পুলিশ ও কোতয়ালী থানা পুলিশ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে। 
আহত কালু কারাগারের পেছনে ডিআইজি রোডের বস্তির বাসিন্দা আব্দুল খালেকের ছেলে। তিনি ভবঘুরে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
কালু সুবর্ণভূমিকে জানান, তিনি পেশায় ভ্যানচালক এবং ভাংড়ি মালামাল সংগ্রহ করে বিক্রি করেন। বুধবার দুপুরে কারাগারের বাউন্ডারির মধ্যে কোয়ার্টারের পাশে পলিথিন, প্লাস্টিকের বোতল কুড়িয়ে বস্তার মধ্যে রাখছিলেন। এসময় একটি সাদা প্লাস্টিকের কৌটা পেয়ে তা নাড়াচাড়া করতে থাকেন তিনি। একপর্যায়ে তিনি সেটিকে নারিকেল গাছে ছুড়ে মারেন। তখনই বিস্ফোরণ ঘটে। এতে গুরুতর আহত হন তিনি। কারারক্ষী ও থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে দেন।
কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু তালেব সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘কালু টোকাই। তার বাবা কারারক্ষী ছিল। সে আমাদের ডিআইজি স্যারের বাসার পেছনে বস্তিতে ঘর বেঁধে থাকে। সে সাবেক কারাপুলিশের ছেলে বিধায় কারাগারের বিভিন্ন কোয়ার্টারে যাতায়াত করে। কেউ তাকে বাধা দেয় না। আজ দুপুরে সে ভাঙড়ি মালামাল সংগ্রহ করার সময় একটি পরিত্যক্ত বোমার বিস্ফোরণে আহত হয়।’
ঘটনার ব্যাপারে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। আহত ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলেও জানান জেলার।
এক প্রশ্নের জবাবে জেলার বলেন, ‘বোমাটি কারাগার কম্পাউন্ডে কীভাবে এলো তা গভীরভাবে অনুসন্ধান করে দেখা হচ্ছে।’
জেনারেল হাসপাতালের অর্থোপেডিক ওয়ার্ডের সিনিয়র নার্স হাসিনা বেগম ইন্টার্ন ডাক্তার মোহাম্মদ অলির উদ্ধৃতি দিয়ে সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘বোমায় আহত কালুর ডান হাতের কব্জি থেকে অনেকখানি মাংস খসে পড়েছে। তবে সে আশংকামুক্ত।’
যশোর কোতয়ালী থানার এসআই জাহিদুল ইসলাম সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘কারাগারের সীমানার মধ্যে কোয়ার্টারের পাশে পরিত্যক্ত একটি বোমায় কালু নামে এক টোকাই আহত হয়েছে। আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে দিয়েছি।’

আরও পড়ুন