দুটি বাজে সিদ্ধান্ত বদলে দিয়েছে খেলাটা

আপডেট: 02:38:28 16/07/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : মস্কোয় ফাইনালের প্রথমার্ধটা ছিল বিতর্কে ভরা। আর ফাইনাল শেষে রেফারির দুই সিদ্ধান্তের প্রবল সমালোচনা করেন অ্যালান শিয়েরার, ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যান, রিও ফার্ডিন্যান্ডের মতো সাবেক তারকারা। 

ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া বিতর্কিত গোলে পিছিয়ে পড়ে দুই দুইবার। আর পরে আক্রমণাত্মক ক্রোয়াটদের বিপক্ষে কাউন্টার অ্যাটাকে ফ্রান্স গোল আদায় করলে ব্যবধানটা বড় হয় আরো। 

ইংল্যান্ড ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক অ্যালান শিয়েরার বলেন, এমন হাস্যকর সিদ্ধান্তে ফাইনালের নিষ্পত্তি হতে পারে না। দারুণ এক টুর্নামেন্টের শেষটায় এমনটি অপ্রত্যাশিত।

পুরো ম্যাচে ক্রোয়েশিয়া ছিল দুর্দান্ত আর তারা ফাইনালে হারলো এমন এক ফ্রি কিকের জন্য যেটা ফ্রি কিক ছিল না এবং এমন এক পেনাল্টির জন্য যা পেনাল্টি ছিল না। এটা লজ্জার। 

সাবেক ইংলিশ ডিফেন্ডার রিও ফার্ডিন্যান্ড বলেন, এটাকে ১০০% পেনাল্টি বলতে পারবে না কেউই। এটা তার (পেরিসিচ) ইচ্ছাকৃত হ্যান্ডবল ছিল না। বল থেকে হাত দূরে রাখতে যথেষ্ট সময়ও পায়নি সে। আর রেফারি অনেক সময় নিয়েছেন সিদ্ধান্ত নিতে, তার মানে তিনি নিজেও নিশ্চিত ছিলেন না। 

ফাইনাল শেষে জার্মানির বিশ্বকাপজয়ী তারকা ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যান বলেন, আপনি নিশ্চিত না হলে পেনাল্টি দিতে পারেন না। এটা ছিল ভুল সিদ্ধান্ত। 

যদিও ভিন্নমত জানান সাবেক ইংলিশ ফুটবলার ক্রিস ওয়াডল। তিনি বলেন, আমি হলেও এটা পেনাল্টি দিতাম। 

ফাইনালের ১৮তম মিনিটে ক্রোয়াট স্ট্রাইকার মারিও মানজুকিচের আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্স। ফ্রি কিকটাও ছিল বিতর্কিত। ভিডিও রিপ্লেতে দেখা যায় ক্রোয়াট মিডফিল্ডার মার্সেলো ব্রজোভিচ ফরাসি তারকা আন্তোইন গ্রিজম্যানকে ফাউল করেননি। 

অ্যালান শিয়েরার বলেন, এটা ডাইভ। গ্রিজম্যান চাইছিল ব্রজোভিচ তাকে ফাউল করুক। কিন্তু ব্রজোভিচ তা করেনি। 

রিও ফার্ডিনান্ড মনে করেন, দুটি বাজে সিদ্ধান্ত ম্যাচে গতি প্রকৃতি পালটে দিয়েছে। ইংল্যান্ড জাতীয় দলের জার্সি গায়ে ৮১ ম্যাচের তারকা ফার্ডিন্যান্ড বলেন, দুটি বাজে সিদ্ধান্ত বদলে দিয়েছে খেলাটা। 

ইংল্যান্ডের সাবেক তারকা স্যার ট্রেভর ব্রুকিং বলেন, আমি খুবই ক্ষুব্ধ। এটা কখনোই ফ্রি কিক ছিল না। গ্রিজম্যানের গায়ে স্পর্শই লাগেনি।

সূত্র : মানবজমিন