কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে আটক ২

আপডেট: 09:45:01 17/10/2017



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে প্রতারণার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে সোহেল রানা ও মিজানুর রহমান নামে তিয়ানসি বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের দুই কর্মকর্তাকে আটক করেছে পুলিশ।
মঙ্গলবার বিকেলে কোতয়ালী থানার পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্ট অ্যান্ড কমিউনিটি পুলিশিং) তোফায়েল আহম্মেদ শহরের ঘোপ জেল রোডের তিয়ানসি বাংলাদেশ কোম্পানির যশোর অফিস থেকে তাদের আটক করেন।
সোহেল রানা ওই কোম্পানির অফিস ইনচার্জ। তিনি ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার ফুলবাড়ি গ্রামের জালাল শেখের ছেলে। আর মিজানুর রহমান একই কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটর এবং ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার গোয়ালহুদা গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে।
প্রতারণার শিকার সাতক্ষীরার তালা উপজেলার হাজরাকাঠি গ্রামের মো. সামাদের ছেলে আরিজুল ইসলাম সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘আমিসহ পাঁচ শতাধিক লোকের কাছ থেকে প্রতারণা করে তিয়ানসির বিভিন্ন প্রোডাক্ট দিয়ে প্রায় অর্ধশত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে কর্মকর্তারা। আমি জমি বিক্রি করে এক লাখ টাকা এবং ব্র্যাক থেকে ঋণ তুলে আরো ৫০ হাজার, মোট দেড় লাখ টাকা সোহেল রানাকে দিয়েছি। টাকা দেওয়ার সময় আমাকে একটি বিসিএম মেশিন ও তিনটি ব্রেসলেট দেওয়া হয়েছিল। তখন সোহেল রানা আমাকে বলেছিলেন, আরো দুইজন আনলে প্রতি মাসে মুনাফার টাকা পাবো।’
প্রতারণার শিকার খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার কওসার মোড়ল (৬০) সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘‘জমি বিক্রি করে এক লাখ ৫৮ হাজার টাকা কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটর মিজানুর রহমানকে দিয়েছি। টাকা দেওয়ার সময় কিছু ওষুধ ও তিনটি ব্রেসলেট দেয়। কোম্পানির লোকজন বলে, ‘তুমি আর দুইজন লোক আনো। এর পরে প্রতি মাসে টাকা পাবা।’ এভাবে ৫-৬ শত লোকের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তারা।’’
প্রতারণার শিকার আরেকজন যশোরের চৌগাছা উপজেলার পুড়াপাড়া গ্রামের খোরশেদ আলমের স্ত্রী সাবেনা বেগম। তিনি সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘‘আমি লিভারের রোগী। গরু বিক্রি করে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছি। বিনিময়ে আমাকে দুই-তিনটি ওষুধ দিয়েছে এবং অফিস থেকে আমাকে বলেছে, ‘দুইজন লোক জোগাড় করো। মাসে মাসে টাকা পাবা।’ আমার সাথে এরা প্রতারণা করেছে।’’
মহেশপুরের সাবদালপুর গ্রামের আসাদুলের মেয়ে রোকেয়া খাতুন সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘আমার বাবা রাজমিস্ত্রির কাজ করে। বহু কষ্ট করে ৫০ হাজার টাকা জোগাড় করে এই কোম্পানিকে দিয়েছি। এরা আমার সাথে প্রতারণা করেছে।’
যশোর উপশহরের বি-ব্লকের হাজি নুর মোহাম্মদের ছেলে মিজানুর রহমান সুবর্ণভূমিকে জানিয়েছেন, তিনি এই কোম্পানিতে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে প্রতারণার শিকার হয়েছেন।
তবে অভিযুক্ত সোহেল রানা সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘আমরা কোটি কোটি টাকা ইনভেস্ট করে ব্যবসা করছি। কারো সাথে প্রতারণা করিনি। আমরা কোম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করি।’
যশোর কোতয়ালী থানার পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্ট অ্যান্ড কমিউনিটি পুলিশিং) তোফায়েল আহম্মেদ সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘তিয়ানসি নামে একটি কোম্পানির যশোর অফিসে কর্মরতরা শত শত লোকের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগের ভিত্তিতে আমি ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে শতাধিক নারী-পুরুষ আমার কাছে অভিযোগ করেন, তাদের তাদের কাছ থেকে মোটা টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। আমি অফিসের দুই কর্মকর্তাকে আটক করে থানায় এনেছি।’

আরও পড়ুন