মারা গেছে সেই মুক্তামণি

আপডেট: 01:41:51 23/05/2018



img

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : মারা গেছে সাতক্ষীরার সেই মুক্তামণি; যে বিরল রোগ হেমানজিওমায় আক্রান্ত হয়ে কষ্টের জীবনযাপন করছিল।
সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কামারবায়সা গ্রামে বাবা-মায়ের সামনেই বুধবার সকাল ছয়টা ৫৯ মিনিটে মৃত্যু হয় ১২ বছরের শিশুটির।
মুক্তামণির বাবা ইব্রাহিম হোসেন বলেন, “গত কয়দিন ধরেই তো অবস্থা খারাপ হচ্ছিল। আজ ভোরে বমি শুরু হলো। একবার পানি খেতে চাইল। ওর দাদি গেল পানি আনতে। পানি আনতে আনতে সব শেষ।”   
মুক্তামণির মৃত্যুতে তার বাড়িতে এখন শুধু কান্নার রোল। মা আসমা খাতুনের কিছু বলার ভাষাও আর নেই।
মুদি দোকানি ইব্রাহিমের মেয়ে মুক্তামণির ডান হাতে দেড় বছর বয়সে একটি ছোট গোটা দেখা দেয়। পরে তা বাড়তে থাকে।
হাতে বিকট আকৃতির ফোলা নিয়ে গত ১১ জুলাই ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি হয় মুক্তামণি। চিকিৎসকরা তার রোগ শনাক্ত করেন রক্তনালীর এক ধরনের টিউমার হিসেবে, যাকে চিকিৎসার পরিভাষায় বলা হয় হেমানজিওমা।
ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসকের একটি দল মুক্তামণির হাতে ছয় দফা জটিল অস্ত্রোপচার করেন। কিছুটা ভালো বোধ করলে গত বছরের ২২ ডিসেম্বর তাকে বাড়ি ফেরার অনুমতি দেন চিকিৎসকরা।
কিন্তু গত কিছুদিনে মুক্তামণির অবস্থার অবনতি হয়।  হাতের ক্ষতস্থানে আবারও পচনের লক্ষণ দেখা যায়, সেই সঙ্গে জ্বর। অবস্থা এতোটাই খারাপ হয়ে যায় যে, দাঁড়ানোর মতো শক্তিও মেয়েটির ছিল না।
ইব্রাহিম হোসেন জানান, তিনি আবার ঢাকা মেডিকেলে যোগাযোগ করেছিলেন, চিকিৎসকরা ঈদের পর মেয়েকে নিয়ে ঢাকায় যেতে বলেছিলেন। কিন্তু তার আগেই সব ছেড়ে চলে গেল মুক্তামণি।

আরও পড়ুন