ভারত থেকে আনা হলো আরো ১০০ মহিষ

আপডেট: 01:42:37 20/07/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : বেনাপোল বন্দর দিয়ে আবার আমদানি করা হলো ১০০ মহিষের একটি চালান।
বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে ছোট বড় ১০০টি মহিষ আসে ভারতের পেট্রাপোল বন্দর হয়ে বেনাপোল বন্দরে। মহিষগুলো হরিয়ানা থেকে আমদানি করা হয়েছে।
এর আগে গত ৯ মে প্রথম চালানে ১০০টি মহিষ আমদানি করা হয়েছিল।
কাস্টমস ও বন্দর সূত্রে জানা গেছে, সিরাজগঞ্জে মিল্কভিটা কোম্পানি দুধ উৎপাদনের জন্য ৫০টি মহিষ ও ৫০টি মহিষের বাছুর আমদানির জন্য দরপত্র অনুযায়ী ঢাকার আমদানিকারক জেনটিক্স ইন্টারন্যাশনাল এই মহিষগুলো ভারত থেকে আমদানি করে। ভারতের রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান হলো জে কে এন্টারপ্রাইজ। বেনাপোলের হটলাইন কার্গো ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট আমদানিকৃত মহিষগুলো বেনাপোল কাস্টমস হাউজ থেকে ছাড় নেওয়ার জন্য বিল অব এন্ট্রি দাখিল করে। মহিষের আমদানি মূল্য ঘোষণা দেওয়া হয়েছে ৮২ হাজার ২২৫ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার মূল্য দাঁড়ায় ৭০ লাখ ২০ হাজার ৯৮৫ টাকা। এই মহিষের কোনো আমদানি শুল্ক নেই। তবে প্রাণিসম্পদ বিভাগের ছাড়পত্র নিতে হবে।
শার্শা উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা জয়দেবকুমার সিংহ জানান, মহিষগুলো সিরাজগঞ্জের মিল্কভিটায় নিয়ে যাওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে মহিষগুলো সুস্থ পাওয়া গেছে। প্রাণিসম্পদ বিভাগের সরকারি শুল্ক আদায় করে যথাযথভাবে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। 
আমদানিকারক জেন্টিক্স ইন্টারন্যাশনালের অফিস সহকারী তরিকুল ইসলাম জানান, মহিষগুলো ভারতের হরিয়ানা প্রদেশ থেকে কেনা হয়েছে। বাংলাদেশ মিল্কভিটাকে এসব মহিষ সরবরাহ করা হবে। দেশে দুধ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা ও কৃষি খামারে প্রজননের জন্য এসব মহিষ কাজে লাগানো হবে।
বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা হারুন আর রশিদ জানান, মহিষগুলো বেনাপোল কাস্টমস হাউজ থেকে খালাস নিতে হটলাইন কার্গো ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করেছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে শুল্কায়ন করার পর মহিষগুলো খালাস দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন