নাম বিভ্রাটে বাড়তি এক মাস জেল খাটতে হলো

আপডেট: 04:52:51 18/07/2018



img

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : কলারোয়ার আনোয়ারুল ইসলাম জামিন পেয়েও নাম ঠিকানা বিভ্রাটে এক মাসেরও বেশি জেলে আটকে থাকার পর অবশেষে জেল থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তিনি সাতক্ষীরা জেলা কারাগার থেকে মুক্তি লাভ করেন।
এর আগে গত ১৫ জুলাই তিনি ‘নাম বিভ্রাটে কারাগার থেকে মুক্তি পাচ্ছেন না’ উল্লেখ করে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরপরই কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে। খবর প্রকাশের পর তোলপাড় শুরু হলে সাতক্ষীরা জেল কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে কলারোয়া থানা পুলিশ একটি রিপোর্ট দেয়। এই রিপোর্টের ভিত্তিতে সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ সাদিকুল ইসলাম তালুকদার মঙ্গলবার তার মুক্তির আদেশ দেন।
মো. আনোয়ারুল ইসলাম সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার ঝিকরা গ্রামের আবুল কাসেম খন্দকারের ছেলে। তিনি পেশায় ভ্যানচালক। তার একটি মামলার সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয় ভুল নাম ঠিকানার আরো একটি মামলা ।
স্ত্রী চায়না বেগম জানান, গত ৮ জুন তার স্বামী মো. আনোয়ারুল ইসলামকে গ্রেফতার করে কলারোয়া থানা পুলিশ। এরপর তাকে ইয়াবা পাচারের একটি মামলায় (কলারোয়া থানা মামলা নম্বর ১২, তারিখ ০৮.০৬.১৮) দুই নম্বর আসামি করা হয়। এ মামলার প্রধান আসামি শফিকুল ইসলামের পকেট থেকে ৫১ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হলেও তার স্বামীর কাছ থেকে কোনো ইয়াবা উদ্ধার হয়নি।
এই মামলায় তার স্বামী ঈদের আগেই জামিন লাভ করেন বলে জানান চায়না।
তিনি বলেন, তার স্বামীর মূল মামলার সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয় ফেনসিডিল পাচারের একটি পুরনো মামলা (কলারোয়া থানা মামলা নম্বর ২৫, তারিখ ২৩.০৯.১৭)। এ মামলার আসামির নাম মো. আনোয়ার হোসেন, পিতা মো. আবুল কাসেম, গ্রাম- গদখালি, উপজেলা- কলারোয়া। তিনি জানান, এই দুই মামলায় তার স্বামীর নাম তার বাবার নাম এবং ঠিকানায় গরমিল ছিল। অথচ সেই মামলার কারণে তার স্বামী অতিরিক্ত এক মাস জেলে আটক ছিলেন।
সাতক্ষীরা সদর কোর্ট ইনসপেক্টর আশরাফুল বারী জানান, মিডিয়ায় প্রকাশের পর বিষয়টি জেলা ও দায়রা জজের নজরে আসে। পরে জেলা জজ তাকে মুক্তির আদেশ দেন।

আরও পড়ুন