দুই ডাকাতের কাছে মিললো ৩০ পিস সোনার বার

আপডেট: 08:09:04 19/01/2018



img
img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : মহেশপুর থানা পুলিশ বাস ডাকাতির ঘটনায়  ৩০ পিস সোনার বারসহ দুই ডাকাতকে আটক করেছে।
শুক্রবার ভোররাতে আটক দুই ডাকাত আশরাফুল আলম পটলা ও হারুনুর রশিদ মিলনের বাড়ি থেকে সোনার বারগুলো উদ্ধার হয়। এর আগে ওই দুইজনকে বৃহস্পতিবার গভির রাতে ঢাকা ও কোটচাঁদপুর থেকে আটক করা হয়।
মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আহম্মেদ কবির জানান, গত ৪ জানুয়ারি গভির রাতে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ‘সোনারতরী পরিবহনের’ একটি বাস মহেশপুর উপজেলার কোটচাঁদপুর-জীবননগর সড়কের বজরাপুরে পৌঁছালে একদল ডাকাত হানা দেয়। তারা বাস ডাকাতি করে সোনার বারগুলো নিয়ে পালিয়ে যায়। ৭ জানুয়ারি মহেশপুর থানার এসআই আনিচুর রহমান বাদী হয়ে একটি ডাকাতি মামলা করেন। পরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ও থানা পুলিশ একযোগে কাজ শুরু করে আসামিদের শনাক্ত করতে।  গত বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) ঢাকার গাবতলী সোনারতরী পরিবহন কাউন্টার থেকে কোটচাঁদপুর পোস্ট অফিসপাড়ার ডাক্তার আবুল কাশেমের ছেলে আশরাফুল আলম পটলা (৫০) ও একই এলাকার আর্দশপাড়ার মিজানুর রহমানের ছেলে হারুনুর রশিদ মিলনকে (২৮)  আটক করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে  পটলার বাড়ি থেকে ২১ পিস ও মিলনের বাড়ি থেকে নয় পিস সোনার বার উদ্ধার করা হয়; যার ওজন তিন কেজি ৪০০ গ্রাম।
ডাকাত দলের অন্য সদস্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলে জানান ওসি কবির।
উল্লেখ্য,  গত ৪ জানুয়ারি রাতে বাস ডাকাতির ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে ইতিমধ্যে মহেশপুর থানার এসআই আনিচুর রহমান ও এসআই নাজমুল হকসহ আট পুলিশ সদস্যকে দায়িত্বে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন