সাত কোটি টাকা ফেরত চান ইবি শিক্ষক-কর্মীরা

আপডেট: 06:37:39 24/09/2017



img
img

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : সই জালিয়াতি করে অগ্রণী ব্যাংক কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা থেকে হাতিয়ে নেওয়া প্রায় সাত কোটি টাকা ফেরত দেওয়ার দাবি উঠেছে।
ক্ষুব্ধ ব্যক্তিরা টাকা ফেরতসহ দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে তাদের শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন।
এই দাবিতে আজ রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মানববন্ধন, বিক্ষোভ এবং ব্যাংক ঘেরাওসহ অবস্থান কর্মসূচি পালন করে কর্মকর্তা ও কর্মচারী সমিতি। এই কর্মসূচি থেকে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত আলটিমেটাম দেওয়া হয়। এর মধ্যে টাকা ফেরতে কার্যকর পদক্ষেসহ ইতিবাচক কোনো আশ্বাস না পেলে ব্যাংকের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়াসহ কঠোর কর্মসূচি ঘোষণার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়।
কর্মসূচিতে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর মাহবুবুর রহমান, বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি সামসুল ইসলাম জোহা, সহায়ক কর্মচারী সমিতির সভাপতি উকিল উদ্দিন, সাধারণ কর্মচারী সমিতির সভাপতি আতিয়ার রহমানসহ সর্বস্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, ২০১১ সাল থেকে বিভিন্ন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৬ জন কর্মচারীর নামে একই প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী মিজানুর রহমান লিটন সই জালিয়াতি করে ভোগ্যপণ্য কেনার নামে বিপুল টাকা হাতিয়ে নেন। তার একই কাজে ব্যাংকের কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজস রয়েছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।
ওই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রাথমিক প্রমাণের ভিত্তিতে লিটনকে সাময়িক বরখাস্ত করে। এছাড়া বিশ^বিদ্যালয় ও ব্যাংকের পক্ষ থেকে আলাদা তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়।

আরও পড়ুন