চাল কম : চেয়ারম্যানের গালে ভ্যানচালকের চড়

আপডেট: 08:15:50 20/08/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে হতদরিদ্রদের জন্য ঈদ উপলক্ষে বরাদ্দ ভিজিএফের চাল ওজনে কম দেওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান নাসির উদ্দীন চৌধুরীকে চড় মেরেছেন শরিফুল ইসলাম নামে এক ভ্যানচালক।
ঘটনাটি ঘটেছে কালীগঞ্জ উপজেলার শিমলা রোকনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে। জনপ্রতি ২০ কেজি করে দেওয়ার কথা থাকলেও শিমলা-রোকনপুর ইউনিয়নে দশ কেজি করে চাল দেওয়া হয় দুস্থদের।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার দুপুরে চেয়ারম্যান নাসির চৌধুরীর উপস্থিতিতে ভ্যানচালক শরিফুলকে সাত কেজি চাল দেন গ্রামপুলিশ আব্দুল হাকিম। ২০ কেজির বদলে মাত্র সাত কেজি চাল নিতে অস্বীকৃতি জানান ভ্যানচালক শরিফুল। এসময় ক্ষুব্ধ চেয়ারম্যান নাসির উদ্দীন ভ্যানচালকের মুখে চড় মেরে বলেন, ‘হাট শালা, তোর চাল দেওয়া হবে না’। প্রতিবাদী ভ্যানচালক শরিফুলও পাল্টা চড় বসিয়ে দেন চেয়ারম্যানের মুখে। এরপর সেখানে উপস্থিত চৌকিদাররা চেয়ারম্যানের নির্দেশে ভ্যানচালক শরিফুলকে মারপিট বের করে।
ঘটনার পর বিকেলেই ভ্যানচালক শরিফুল ইসলাম কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।
শরিফুল ইসলাম কালীগঞ্জ উপজেলার ছোটশিমলা গ্রামের ছবেদ আলী মন্ডলের ছেলে।
তথ্য নিয়ে জানা গেছে, ইউনিয়নে মোট ভিজিএফ কার্ডধারী ৮৮৪ জন। সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক ওই ইউনিয়নের ৪৮৩ জনকে ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করার কথা। কিন্তু চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে কাউকে কাউকে দশ কেজি করে চাল দেওয়া হয়। এতে হকদার গরিব মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
তবে শিমলা রোকনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাসির উদ্দীন চৌধুরী বলছেন, শরিফুল ইসলাম ভিজিএফএর তালিকাভুক্ত না। গরিব হওয়ায় মানবিক কারণে তাকে দশ কেজি চাল দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি চাল না নিয়ে গ্রাম পুলিশদের মারধর করেন।
তার মুখে ভ্যানচালক শরিফুল চড় মারেননি বলে দাবি করেন চেয়ারম্যান। তবে চেয়ারম্যানের মুখে চড় মারা সংক্রান্ত শরিফুলের বক্তব্যের ভিডিও রেকর্ড রয়েছে সুবর্ণভূমির হাতে।
কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার উত্তমকুমার রায় বলেন, ‘রোববার বিকেলে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি।’

আরও পড়ুন