আজ ব্রাজিলের পরীক্ষা

আপডেট: 02:02:05 22/06/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : ২০১৪ সালের ‘মিনেইরো ট্র্যাজেডি’ ভোলানোর অদম্য বাসনা নিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু করতে চেয়েছিল ব্রাজিল। ফিলিপ কৌতিনিয়োর চমৎকার গোলে শুভ সূচনার আভাস মিলেছিল। কিন্তু ডিফেন্সের অল্প ফাঁকের সুযোগ নিয়ে তাদের হতাশ করেছে সুইজারল্যান্ড। ১-১ গোলে ড্রয়ে শুরু করা ব্রাজিলের এবার ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই। পারবে কি তারা?
আজ শুক্রবার সেন্ট পিটার্সবার্গে তাদের প্রতিপক্ষ গতবারের কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট কোস্টা রিকা। সন্ধ্যা ৬টায় ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে মুখোমুখি হবে উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার দুই প্রতিপক্ষ। খেলাটি সরাসরি সম্প্রচার করবে চ্যানেল নাগরিক, মাছরাঙা, সনি টেন ২ ও টেন ৩।
শিরোপার অন্যতম দাবিদার হয়ে বিশ্বকাপ শুরু করেছিল ব্রাজিল। ডিবক্সের বাইরে থেকে চমৎকার গোলে সুইসদের বিপক্ষে তাদের এগিয়ে দেন কৌতিনিয়ো। কিন্তু তারা পারেনি জয়ের উৎসব করতে। দ্বিতীয়ার্ধে স্টিভেন জুবেরের শক্তিশালী হেডে তাদের রুখে দেয় সুইজারল্যান্ড।
ওই ম্যাচের পর নেইমারের অনুশীলনে না থাকা বড় ধাক্কা হয়ে এসেছিল ব্রাজিলের জন্য। যদিও গত বুধবার দলের সঙ্গে অনুশীলন করেছেন তিনি। তাকে রেখেই একাদশ সাজানো হবে জানালেন কোচ তিতে, ‘সাড়ে তিন মাসের মধ্যে সে প্রথমবার (সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে) ৯০ মিনিট খেললো। বিজ্ঞান (সেরে ওঠার পেছনে) ও শান্ত থাকার ব্যাপার আছে। তার পুরো ফিট হতে অন্তত পাঁচ ম্যাচ লাগবে। তারপরও দুশ্চিন্তার কিছু নেই।’
প্রথম ম্যাচ ড্র করলেও ইতিহাস কিন্তু ব্রাজিলের পক্ষে। টানা ২১তম বিশ্বকাপ খেলার পথে গ্রুপের গত ১৩টি ম্যাচে অজেয় তারা- দশ জয় ও তিন ড্র। ১৯৮২ সালের পর থেকে প্রত্যেক বিশ্বকাপে প্রথম পর্বে গ্রুপের শীর্ষে ব্রাজিল। শেষবার তারা গ্রুপের বাধা পেরোতে পারেনি ১৯৬৬ সালে।
তাছাড়া কোস্টা রিকার সঙ্গে সাক্ষাতেও দাপটের সঙ্গে এগিয়ে ব্রাজিল। দশ ম্যাচের নয়টি জিতেছে ব্রাজিল, একটি হার ১৯৬০ সালের এক প্রীতি ম্যাচে। বিশ্বকাপে তৃতীয়বার মুখোমুখি হচ্ছে দুই দল। ১৯৯০ সালে বিশ্বকাপের প্রথম হারের তেতো স্বাদ পেয়েছিল কোস্টা রিকা, ১-০ গোলে। পরের দেখা ২০০২ সালে, ৫-২ গোলে প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিয়েছিল সেলেসাওরা।তবে তিতে ওসব পরিসংখ্যানের দিকে তাকাচ্ছেন না। প্রথম ম্যাচ ড্র করায় কোস্টা রিকার বিপক্ষে কোনো ভুল করতে চান না তিনি, ‘এই ম্যাচ খুব মূল্যবান। কারণ প্রথম ম্যাচ আমরা ড্র করেছি। আমরা সতর্ক আছি। আক্রমণে দারুণ চেষ্টার সঙ্গে একই ধরনের রক্ষণাত্মক খেলা খেলতে হবে।’
ইনজুরিতে পড়া দানিলোর জায়গায় কোস্টা রিকার বিপক্ষে খেলবেন ফ্যাগনার।
এই ম্যাচ দিয়ে আবার ব্রাজিলের অধিনায়কত্ব পাচ্ছেন থিয়াগো সিলভা। গত বিশ্বকাপে কড়া সমালোচনা সত্ত্বেও পিএসজির ডিফেন্ডারকে আবার আর্মব্যান্ড দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করলেন তিতে, ‘শেষ বিশ্বকাপের সমালোচিত সবাইকে যদি আমরা বাইরে রাখি তাহলে কেউই খেলতে পারবে না। আমাদের এমনকি জাতীয় দলই থাকবে না। জীবন ও ফুটবল এমনই।’
আগের বিশ্বকাপের তিন অজেয় (পেনাল্টি শুটআউট বাদ দিয়ে) দলের একটি ছিল কোস্টা রিকা। কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডসের কাছে টাইব্রেকারে হেরে বাদ পড়া দলটি টানা দ্বিতীয়বার নকআউটে খেলার আশা ছাড়ছে না। সার্বিয়ার কাছে হেরে শুরু করলেও তারা আরেক দক্ষিণ আমেরিকান প্রতিপক্ষকে বধ করতে প্রস্তুত। গতবার উরুগুয়েকে গ্রুপ পর্বে হারিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করেছিল তারা। এবার বিশ্বকাপে টিকে থাকার পথে ব্রাজিলের বিপক্ষে অন্তত একটি পয়েন্ট উদ্ধার করতে হবে তাদের।
প্রতিপক্ষের প্রাণভোমরা নেইমারকে টার্গেট করে খেলার সম্ভাবনা নাকচ করে দিলেন কোস্টা রিকা কোচ অস্কার রামিরেস। সুইসদের মতো পিএসজি স্ট্রাইকারকে ফাউল করে ফায়দা নিতে চান না তিনি, ‘নেইমারকে ফাউল করার চিন্তা আমি করছি না। ছেলেরা সেটা ভালো করে জানে। নেইমার খুব প্রতিভাবান। বিশেষ গুণ আছে তার। ফাউল করে তাকে থামাতে চেষ্টা করেছিল সুইজারল্যান্ড। কিন্তু আমাদের কৌশল ভিন্ন, আমরা ভিন্ন ভিন্ন ক্ষেত্রে টার্গেট করবো।’
ঘুরে দাঁড়ানোর মিশনে শক্ত চ্যালেঞ্জই ব্রাজিলকে ছুড়ে দিলেন কোস্টারিকা কোচ। আরেক ফেভারিট প্রতিবেশী আর্জেন্টিনাকে গতরাতেই বধ করেছে ক্রোয়েশিয়া। ফলে আজকের ম্যাচে শিরোপার আরেক দাবিদার ব্রাজিলের দিকে তাকিয়ে গোটা ফুটবলবিশ্ব।
সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন