চা-দোকানি বাবা টাচ ফোন কিনে দিতে পারেননি, তাই...

আপডেট: 07:46:34 17/01/2018



img

মাগুরা প্রতিনিধি : ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়, লাশ যেন ময়নাতদন্ত না করা হয়’- এরকম একটি চিরকুট লিখে মাগুরা শহরের নিজনান্দুয়ালীতে গলায় ফাঁস জড়িয়ে আত্মহত্যা করেছে মিতা খাতুন (১৭) নামে এক কলেজছাত্রী। সে মাগুরা সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।
মাগুরা সদর থানার উপ-পরিদর্শক বসির উদ্দিন জানান, টাচ মোবাইল ফোন বঞ্চিত হয়ে মঙ্গলবার রাতে নিজ কক্ষে গলায় ফাঁস জড়িয়ে আত্মহত্যা করে মিতা। সকালে পরিবারের পক্ষ থেকে খবর পেয়ে মিতার নিজ কক্ষ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সেখানে একটি চিরকুট পাওয়া যায়; যেখানে উল্লিখিত কথা লেখা ছিল। ফলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে মোবাইলের কারণে সে আত্মহত্যা করেছে। জেলা প্রশাসনের অনুমতিসাপেক্ষে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
মিতার বাবা হাসান শেখ বলেন, ‘মিতার বায়না ছিল একটি টাচ মোবাইল ফোনের। আমি সামান্য একজন চায়ের দোকানি। সামান্য আয়ে পাঁচ সদস্যের সংসার চালাতে হিমশিম খাই। তবু মেয়ের মন রক্ষা করতে একটি ফোন তাকে দিয়েছিলাম। কিন্তু ফোন দেওয়ার পর লেখাপড়ায় বেশ অনিয়ম লক্ষ্য করি। তাই এক সপ্তাহ আগে সেটি নিয়ে নিই। তারপর থেকেই কিছুটা মন খারাপ ছিল তার। বুধবার সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি করছে দেখে তার ঘরে গিয়ে দেখি আমার সব শেষ।’
মাগুরা জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, ‘এ ধরনের আত্মহনন খুব দুঃখজনক। আমাদের অভিভাবকদের আরো বেশি সচেতন হতে হবে। বিশেষ করে শিক্ষকদের শ্রেণিকক্ষে এ বিষয়ে শিক্ষামূলক পাঠদান করতে হবে। ছেলেবেলা থেকেই শিশুদের পারিবারিক সামর্থ অনুযায়ী চাহিদার সমন্বয় করে চলার শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে।’

আরও পড়ুন