দশ জেলার ভোটগ্রহণ কর্মকর্তার তালিকা চূড়ান্ত

আপডেট: 03:34:35 09/11/2018



img

খুলনা অফিস : খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে তিনটি কেন্দ্রে অনিয়মে অভিযুক্ত ৫৭ কর্মকর্তাকে বাদ দিয়ে জাতীয় নির্বাচনের জন্য বিভাগের দশ জেলায় ভোটগ্রহণ কর্মকর্তার তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার এ তালিকা চূড়ান্ত করা হয়।
তালিকায় খুলনা বিভাগে চার হাজার ৮৩৪ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ২৪ হাজার ২০২ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং ৪৮ হাজার ৪০৪ জন পোলিং অফিসারের নাম স্থান পেয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কেসিসি নির্বাচনে ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইকবালনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় ও একই ওয়ার্ডের লবণচরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে শতভাগ ভোট কাস্ট হওয়ায় রিটার্নিং অফিসার এসব কেন্দ্রের ফলাফল স্থগিত করেন। পরে অনুসন্ধানে দেখা যায়, মৃতরাও ‘ভোট দিয়েছেন’। বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা হওয়ায় ওইসব কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে রিটার্নিং অফিসার নির্বাচন কমিশনকে জানান। নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের আলোকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, অর্থ মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয় উল্লিখিত কেন্দ্রসমূহে দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের এক বছরের ইনক্রিমেন্ট বন্ধ, পদোন্নতি স্থগিত ও পরববর্তীতে ভোট কেন্দ্রের দায়িত্ব পালন থেকে বিরত রাখতে পরামর্শ দেয়। সে আলোকে জেলা নির্বাচন অফিস কেসিসি নির্বাচনে বিতর্কিত ৫৭ জন ভোট কর্মকর্তাকে বাদ দিয়ে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তার তালিকা প্রস্তুত করেছে।
কেসিসি নির্বাচনে ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইকবালনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার সোনালী ব্যাংক সাউথ সেন্ট্রাল রোড শাখার প্রিন্সিপাল অফিসার মো. খলিলুর রহমান, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার গভ. ল্যাবরেটরি হাইস্কুলের সিনিয়র শিক্ষক মো. আব্দুল লতিফ সেখ, সিটি ব্যাংক খুলনা শাখার ইসিও মো. সাজ্জাদুল ইসলাম, খুলনা টেক্সটাইল মিলস্ হাইস্কুলের সহকারী শিক্ষক জোৎস্না খাতুন, সিটি ব্যাংক খুলনা শাখার সিও তানভীর আহমেদ, দক্ষিণ শৈলমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গীতা সরকার, খুউক (কেডিএ) খানজাহান আলী সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সন্দীপকুমার ঢালী, নৌবাহিনী স্কুল অ্যান্ড কলেজের ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ বিভাগের প্রভাষক মো. নূরুল ইসলাম, পোলিং অফিসার শ্রম কল্যাণ কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট এস এম মশিউর রহমান, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সদর থানার অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর মো. আশরাফুল আলম, খানবাহাদুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এসএম রকিবুল হক, গোয়ালখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুমাইয়া সুমি, ক্রিসেন্ট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বেগম রোকেয়া, প্রভাতী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জুনিয়র শিক্ষক রেবেকা খাতুন, আমবাড়িয়া কেটলা মাঝিরগাতী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিক প্রদীপ বিশ্বাস, শহীদ তিতুমীর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রাজিয়া সুলতানা, পূর্ব বয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফেরদৌসী ইয়াসমিন, রায়েরমহল বিদ্যা নিকেতন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হামিদা খাতুন, স্যাটেলাইট টাউন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নাদিম আকতার, সুগন্ধি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী এসএম দাউদ আলি, খুলনা সিএসডি পৌর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মু. হাবিবুর রহমান খান, শের-ই-বাংলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রাধেশ্যাম শীল; ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের লবণচরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার খুলনা পাবলিক কলেজের গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. রুকুনুজ্জামান, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার অগ্রণী ব্যাংক কেডিএ নিউমার্কেট শাখার সিনিয়র অফিসার এ কে এম ফজলুল হক, জনতা ব্যাংক শেখপাড়া শাখার অফিসার খোদেজা খাতুন, বয়রা ডাক বিভাগ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এস এম এনায়েত হোসেন, অগ্রণী ব্যাংক গোয়ালপাড়া শাখার এসও চন্দন রায়, লায়ন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের জীববিজ্ঞানের প্রভাষক সমীরণ মজুমদার, টিঅ্যান্ডটি আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক সুভাসচন্দ্র বাছাড়, পোলিং অফিসার রামকৃষ্ণপুর পশ্চিমপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কাদেরুন নেছা, ছন্দা মণ্ডল ও চায়নারানী সরকার, বাদুরগাছা শিবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পংকজকান্তি মণ্ডল ও প্রফুল্লকুমার মণ্ডল, নবারুণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস, টোলনা পাকুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কৃষ্ণারানী কুণ্ডু ও বিউটি, কোমরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কার্তিকচন্দ্র জোয়ার্দার ও অনিশরঞ্জন বিশ্বাস, সিংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তন্দ্রা মণ্ডল, আটলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আবদুস ছাত্তার মোড়ল; ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার বাংলাদেশ ব্যাংক খুলনার উপপরিচালক মো. আলী হোসেন, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার জনতা ব্যাংক খালিশপুর শাখার ক্যাশ অফিসার টিপু সুলতান চৌধুরী, সোনালী ব্যাংক খালিশপুর শাখার ক্যাশ অফিসার মো. আসাদুজ্জামান সরদার, বয়রা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক দিলীপকুমার পাল, জিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আফরোজা রহমান, জনতা ব্যাংক নূর নগর শাখার এসও সাগরকুমার মণ্ডল, পোলিং অফিসার বাদুরগাছা শিবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ভবেন্দ্রনাথ বাইন, পবিত্রকুমার সরকার ও উত্তম মণ্ডল, নবারুণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফয়জুন নাহার, পার্বতী সরকার ও অনুরাধা বিশ্বাস, কুলতলা শীতলাবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক উজ্জ্বল মণ্ডল ও সুব্রত সরদার, আটলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোসা. মেহেরুন্নেছা, কোমরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক খালেদা খাতুনকে এবারে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তার দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।
সাতক্ষীরা জেলা নির্বাচন অফিসার নাজমুল কবির জানান, জেলায় প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসারদের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। তার ভাষায়, তালিকায় দলনিরপেক্ষ ব্যক্তিদের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।
অন্য একটি সূত্র জানায়, খুলনা বিভাগে জাতীয় নির্বাচনের জন্য চার হাজার ৮৩৪টি কেন্দ্রের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন