দশ ‘কর বাহাদুর পরিবার’, খুলনাঞ্চলে সেরা যারা

আপডেট: 08:06:38 09/11/2017



img
img

খুলনা অফিস : খুলনা কর অঞ্চলের আওতায় বিভাগীয় পর্যায়ে প্রথমবারের মতো দশটি পরিবারকে দেওয়া হলো ‘কর বাহাদুর পরিবার’ সম্মাননা। একই সঙ্গে প্রতি বছরের মতো এবারো ৭৭ জন সর্বোচ্চ, দীর্ঘ মেয়াদী, তরুণ পুরুষ এবং সর্বোচ্চ মহিলা করদাতাদের সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে।
খুলনা নগরীসহ প্রত্যেক জেলায় তিনজন সর্বোচ্চ ও দুইজন দীর্ঘ মেয়াদী, একজন সর্বোচ্চ মহিলা ও একজন তরুণ করদাতাকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়।
বৃহস্পতিবার খুলনা কর অঞ্চলের উদ্যোগে সরকারি মহিলা কলেজ অডিটরিয়ামে সম্মাননা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণচন্দ্র চন্দ।
কর অঞ্চল খুলনার কর কমিশনার মো. ইকবাল হোসেন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।
‘কর বাহাদুর’ সম্মাননাপ্রাপ্তরা হলেন, মহানগরীর নিরালা আবাসিক এলাকার এম এ সালাম ও তার পরিবার, যশোর শহরের সফিউর রহমান মল্লিক ও তার পরিবার, চুয়াডাঙ্গা জীবননগরের মো. রকিবুল ইসলাম ও তার পরিবার, মাগুরার মো. রজব আলী মজনু ও তার পরিবার, সাতক্ষীরার কলারোয়ার মো. গোলাম রব্বানী ও তার পরিবার, নড়াইল রতনগঞ্জের মো. ওয়াহিদুজ্জামান ও তার পরিবার, কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাসের মো. মজিবর রহমান ও তার পরিবার, ঝিনাইদহ শহরের হামদহ এলাকার ডা. দুলালকুমার চক্রবর্তী ও তার পরিবার, মেহেরপুরের মো. আব্দুস সালাম ও তার পরিবার এবং বাগেরহাট আমলাপাড়ার অ্যাডভোকেট মীর শওকত আলী বাদশা ও তার পরিবার।

সর্বোচ্চ, দীর্ঘ, মহিলা ও তরুণ সম্মাননা পেলেন যারা
খুলনা সিটি করপোরেশন এলাকায় সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন এস এম আজিজুল আলম, মো. আব্দুল হামিদ সরদার ও কাজী সানোয়ার হোসেন এবং দীর্ঘ মেয়াদী কর প্রদানকারী হলেন মাহাবুবুর রহমান ও অ্যাডভোকেট শেখ কামাল উদ্দিন। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা আলেয়া বেগম ও তরুণ করদাতা মো. শরিফুল ইসলাম।
খুলনা জেলার সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, ফুলতলা উপজেলার শেখ ইবাদ হোসেন, বটিয়াঘাটা কৈয়া বাজারের মোহাম্মদ জিয়াউল আহসান ও একই উপজেলার জলমা ইউনিয়নের মো. শামীম আহসান। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন, ডুমুরিয়া উপজেলার মাগুরঘোনা ইউনিয়নের শেখ মতিয়ার রহমান ও পাইকগাছা বাতিখালীর মো. আবু তাহের গাজী। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা শিরোমণি বাদামতলার জেসমিন রহমান ও তরুণ করদাতা ডুমুরিয়া সাজিয়ারার মো. মামুনুর রশিদ।
সাতক্ষীরা জেলার সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, মো. আল ফেরদৌস, মো. আজহারুল ইসলাম ও মো. রিয়াজুল হক। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন, শেখ আব্দুল মমিন ও শেখ আব্দুর রাজ্জাক। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা নিলুফা ইয়াসমিন ও তরুণ করদাতা মো. সাজিদুল ইসলাম।
বাগেরহাট জেলার সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, মো. আনিসুর রহমান, মো. সোহেল কবির ও নুরুল ইসলাম খোকা। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন, শেখ দেলোয়ার হোসেন ও নির্মল কাঞ্জি লাল। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা পপি আকতার ও তরুণ করদাতা মীর রহমত আলী।
যশোর জেলায় সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, সদরের মো. আবু নাসের সরকার, মো. আনসারী হোসেন সোহেল ও মো. আবুল কালাম সরকার। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন সন্তোষকুমার ঘোষ ও মো. জালাল আকরাম। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা ফরিদা ইয়াসমিন ও তরুণ করদাতা মো. নুরুল আলম স্বপন।
কুষ্টিয়া জেলার সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, মো. মজিবর রহমান, মো. পারভেজ রহমান ও সেলিমা বেগম। দীর্ঘ মেয়াদী করদাতারা হলেন, মো. আব্দুর রহমান কামাল ও মো. আসাদুজ্জামান। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা তানিয়া আফরোজ ও তরুণ করদাতা মো. শামসুর রহমান।
মাগুরা জেলায় সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন মো. মেহেদী হাসান রাসেল, মো. রানা আমীর ওসমান রানা ও মো. শাহীনুর রহমান পিকুল। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন, বিমলকুমার রায় ও মধুসুদন কুণ্ডু। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা লাবনী হাসান ও তরুণ করদাতা ডা. মো. রোকনুজ্জামান।
নড়াইল জেলার সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, মো. ওয়াহিদুজ্জামান, এস এম রেজাউল আলম ও মো. গিয়াস উদ্দিন খান। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন, চঞ্চলকুমার বাগচী ও সুকুমার রায়। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা নারগিস রহমান ও তরুণ করদাতা মো. মনিরুল ইসলাম।
ঝিনাইদহ জেলার সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, খোন্দকার সাখাওয়াৎ হোসেন, মো. আনোয়ারুল আজীম আনার ও মো. ফারুক আজম। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন, মো. জালাল উদ্দীন ও মো. জহুরুল ইসলাম। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা শামসুন্নাহার ও তরুণ করদাতা কাজী মোস্তাফিজুর রহমান।
চুয়াডাঙ্গা জেলায় সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন, সাইফুন নাহার শাম্মি, মো. মঞ্জুরুল ইসলাম জোয়ার্দার ও মো. আলী রেজা সজল। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন একেএম সালাউদ্দিন মিঠু ও মো. আব্দুল হালিম বিশ^াস। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা শানারা খাতুন ও তরুণ করদাতা মো. গোলাম মোস্তফা।
মেহেরপুর জেলার সর্বোচ্চ করদাতারা হলেন অজয় সুরেকা, মো. আব্দুল হান্নান ও মো. শাহবাজ উদ্দিন। দীর্ঘমেয়াদী করদাতারা হলেন, মো. গোলাম মুর্শিদ চন্দন ও ডা. মেলিনা সুলতানা। এছাড়া সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা হামিদা খানম ও তরুণ করদাতা বকুল হোসেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট (আপিল) কমিশনারেটের কমিশনার আব্দুল মান্নান শিকদার, কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার কে এম অহিদুল আলম, অতিরিক্ত ডিআইজি মো. হাবিবুর রহমান এবং খুলনা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ-সভাপতি মোস্তফা জিসান ভুট্টো। স্বাগত বক্তৃতা করেন যুগ্ম কর কমিশনার মঞ্জুরুল আলম।
গত ১ নভেম্বর থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত খুলনা বিভাগীয় আয়কর মেলায় মোট রাজস্ব আদায় হয়েছে ২৯ কোটি ১৪ লাখ টাকা; যা গতবছরের তুলনায় ৫৬ লাখ টাকা বেশি। এসময়ে মোট রিটার্ন জমা পড়েছে ২৭ হাজার ৮১২টি। নতুন টিআইএন রেজিস্ট্রেশন গ্রহণ করেছেন মোট এক হাজার ১৯৬ জন করদাতা।

আরও পড়ুন