১৩ বছর পর স্বজনকে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা

আপডেট: 07:48:04 19/07/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : মানসিক প্রতিবন্ধী শাজাহান। বয়স ৩০। রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ফকিরপাড়া গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে। ১৩ বছর আগে তিনি বাড়ি থেকে হারিয়ে যান। নিজের অজান্তে ভারত সীমান্তে ঢুকে পড়েন। এ সময় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) তাকে জঙ্গি ভেবে আটক করে থানায় পাঠায়। সেখান থেকে আদালত। আদালত তাকে অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে জেলহাজতে পাঠায়। সঠিক ঠিকানা না পাওয়ায় তাকে ১৩টি বছর কাটাতে হয় জেলহাজতে। সেই থেকে নিখোঁজ ছিলেন শাজাহান। বাড়ির সবাই ভেবেছিলেন, তিনি হয়তো মারা গেছেন।
হঠাৎ করে পুলিশের ফোন পেয়ে তারা হতবিহ্বল। বুধবার বিকেল পাঁচটার দিকে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ শাহাজানকে তার পরিবারের হাতে তুলে দেয়। পরিবারের সঙ্গে শাজাহানের মিলনের সময় থানায় হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। ভাইকে থানায় দেখে জড়িয়ে ধরে হাউমাউ করে কেঁদে ফেলেন বড় ভাই লাল মিয়া। কেঁদে ফেলেন শাজাহান। তাকে পেয়ে বাড়ির সবাই আনন্দে আত্মহারা।
পুলিশ জানায়, ভারতের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে গত ১৩ জুলাই সকালে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন আইনে ভারত থেকে তাকে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে ভারতীয় পুলিশ। কিন্তু তার ঠিকানা সঠিক না থাকায় এতোদিন বাড়িতে পৌঁছানোর সুযোগ হয়নি। তিনি আগোছালোভাবে দু’একটা কথা বলতে পারেন। কিন্তু তা বোঝার জন্য যথেষ্ট না। এছাড়া কাগজপত্রেও তার ঠিকানা সঠিক ছিল না। অবশেষে তার চুল, দাঁড়ি কাটিয়ে বিভিন্ন থানায় ছবি পাঠানো হয়। পরে অনেক চেষ্টার পর তার পরিচয় শনাক্ত করে পরিবারের কাছে খবর পাঠানো হয়।
বেনাপোল পোর্ট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মফিজ উদ্দিন বলেন, ‘মানসিক ভারসাম্য হারানো শাজাহান ভারত থেকে আসার পর অনেক চেষ্টা করে তার ঠিকানা সংগ্রহ করে রংপুর মিঠাপুকুর থেকে তার বড় ভাই লাল মিয়াসহ আত্মীয়স্বজনেরা থানায় এলে তাদের কাছেই তার ভাই শাজাহানকে হস্তান্তর করা হয়। ১৩ বছর পর ভাইকে ফিরে পেয়ে তার পরিবারের পাশাপাশি আমরাও খুশি।’