আ.লীগের সহ-সভাপতিকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

আপডেট: 07:07:40 26/11/2020



img

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের কালিয়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চাচুড়ী ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. লুৎফার রহমান মোল্যাকে (৬৮) দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে।
আহত ওই নেতাকে মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার সকালে কালিয়া-নড়াইল সড়কের আরাজি বাঁশগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহত চেয়ারম্যান লুৎফার হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন বলে জানা গেছে।
আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক চেয়ারম্যানের ওপর হামলার ঘটনায় এলাকাবাসী ও  রাজনৈতিক মহলে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হওয়াসহ চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার বনগ্রামের বাসিন্দা সাবেক চাচুড়ী ইউপির চেয়ারম্যান লুৎফার রহমান সঙ্গে একই গ্রামের মুকুল মোল্যা ও টুটুল মোল্যার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব ও মামলা-মোকদ্দমা চলে আসছিল। ওই গ্রামটিতে হামলা-সংঘর্ষের ঘটনা দীর্ঘদিন ধরে লেগেই থাকে। এরই জের ধরে ওইদিন সকাল সাড়ে নয়টার দিকে লুৎফার রহমান উপজেলার বনগ্রামের নিজবাড়ি থেকে মোটরসাইকেলযোগে নড়াইল পৌরসভার মেয়র জাহাঙ্গীর বিশ্বাসের নামাজে জানাজায় অংশ নেওয়ার জন্য নড়াইল যাওয়ার পথে ওই বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছুলে ওত পেতে থাকা একই গ্রামের মুকুল মোল্যা ও টুটুল মোল্যার নেতৃত্বে ২৫-৩০ জনের একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত মোটরসাইকেল থামিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। তাকে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায় বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।
আহত ওই নেতাকে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।পরে তার অবস্থার অবনতি দেখা দিলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ চারজনকে আটক করেছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।
কালিয়া থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম বলেন,‘পরিস্থিতি এখন শান্ত। ওই হামলার ঘটনায় জড়িতদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। কেউ লিখিত অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আরও পড়ুন