ইমু হত্যায় ব্যবহৃত দুটি দা শিশু একাডেমিতে!

আপডেট: 07:37:22 26/06/2020



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর নূতন উপশহরের এসানুল হক ইমু হত্যা মামলার আরেক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।
শাহিন সরদার (২০) নামে এই তরুণের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার রাতে শহরের পুরাতন কসবা এলাকায় অবস্থিত শিশু একাডেমি কার্যালয়ের মধ্যে থেকে দুটি বড় হাসুয়া উদ্ধার হয়; যা ইমু হত্যায় ব্যবহৃত হয়েছিল।
আজ শুক্রবার শাহিনকে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতের বিচারক মাহাদী হাসানের সামনে হাজির করা হয়। সেখানে সে ইমু হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।
পিবিআইয়ের যশোর ইউনিট ইনচার্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম কে এইচ জাহাঙ্গীর হোসেন এই তথ্য দিয়েছেন।
তিনি জানান, ধরা পড়া মো. শাহিন সরদার পুরাতন কসবা বিবি রোড আমবাগান এলাকার জনৈক মো. হাসেম সরদারের ছেলে। অস্ত্র উদ্ধারের জন্য বৃহস্পতিবার রাত আটটা ২০ মিনিটে তাকে নিয়ে শিশু একাডেমিতে যাওয়া হয়।
গত ২২ জুন উপশহর খাজুরা বাসস্ট্যান্ডের কাছে শিশু হাসপাতালের উল্টো দিকে একটি চায়ের দোকানে ইমুকে কুপিয়ে হত্যা করে একদল সন্ত্রাসী। শাহিন ছাড়াও এই হত্যায় জড়িত আল শাহরিয়ার নামে আরেক দুর্বৃত্তকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই
ইমু হত্যা মামলাটি কোতয়ালী থানায় রুজু হলেও পিবিআই স্বেচ্ছায় এটির তদন্তভার নেয়। মামলাটি তদন্ত করছেন পিবিআইয়ের এসআই স্নেহাশিস দাশ। ইতিমধ্যে তারা হত্যাকাণ্ডের মোটিভ উদ্ঘাটন করতে সক্ষম হয়েছেন বলে জানান তদন্তকারী কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন