এই মাসেই ভোট চান পরিবহন শ্রমিকনেতারা

আপডেট: 07:45:32 21/03/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতির স্থগিত হয়ে যাওয়া নির্বাচন আগামী ২৭ মার্চ অনুষ্ঠানের দাবি করেছেন শ্রমিকনেতারা। 
আজ দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই দাবি করা হয়। 
সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি মামুনুর রশিদ বাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক মর্ত্তুজা হোসেনসহ নির্বাহী কমিটির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবরোধে গত ১৮ মার্চ রাতে জেলা প্রশাসন তাদের নির্বাচন স্থগিত করে। ২০ মার্চ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সর্ববৃহৎ এই শ্রমিক সংগঠনের নির্বাচনের কথা ছিল।
তারা বলেন, 'আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়ে যাওয়ার পর ভোটগ্রহণের ঠিক আগ মুহূর্তে নির্বাচন স্থগিতের ঘোষণা শ্রমিকদের অত্যন্ত বেদনার বিষয়।  এই নির্বাচনে ৬৩ জন প্রার্থী গত তিন-চার মাস ধরে দিনরাত পরিশ্রম করে আসছেন।  তাছাড়া ভোট দেওয়ার জন্যে সদস্যদের একটি বড় অংশ যশোরের বাইরের দেশের বিভিন্ন জেলায় তাদের কর্মস্থল থেকে ছুটি নিয়ে এসেছেন। এমতাবস্থায় ভোট স্থগিত করায় প্রার্থীসহ ভোটাররা দারুণভাবে ক্ষতির শিকার হয়েছেন।'
নেতারা বলেন, সময়মতো নির্বাচন সম্পন্ন না হওয়ায় একদিকে যেমন ভোটারদের চাপের মুখে থাকতে হচ্ছে, ঠিক তেমনি সংগঠনের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা কতিপয় শ্রমিকনেতা সাধারণ শ্রমিকদের উস্কানি দিয়ে ধর্মঘট বা গাড়ি বন্ধের মতো কর্মসূচি দিতে প্ররোচনা দিচ্ছেন। এমনকী তারা ক্ষমতা দখল করার মতো ষড়যন্ত্রও করছেন।  তাছাড়া, সময়মতো ভোটগ্রহণ সম্পন্ন না হলে সাধারণ শ্রমিকরা সাংবিধানিকভাবে ক্ষতিরও শিকার হবেন। 
তারা এই অবস্থা থেকে উত্তরণে জেলা প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করে বলেন, আগামী শুক্রবার (২৭ মার্চ) ভোটগ্রহণ করে শ্রমিকদের এই সংকট থেকে রক্ষা করুন। প্রয়োজনে সংগঠনের নয় হাজার ভোটারের অর্ধেক একদিন এবং বাকি অর্ধেক ভোটারের ভোটগ্রহণ আরেকদিন গ্রহণের প্রস্তাবও রাখেন শ্রমিকনেতারা।  
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়েন সাংগঠনিক সম্পাদক হারুনর রশিদ ফুলু।

আরও পড়ুন