এক যুগ পর বাবা-মায়ের সান্নিধ্যে

আপডেট: 05:23:35 05/05/2019



img

স্টাফ রিপোর্টার : এক যুগ পর বাবা-মায়ের কাছে ফিরলো বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু নাঈম।
আজ সকালে স্থানীয় সার্কিট হাউজে যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের পক্ষ থেকে তাকে তার বাবা-মায়ের কাছে তুলে দেওয়া হয়। এসময় সেখানে যশোরের জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল, সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক অসিতকুমার সাহা, কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, সাইকো সোশ্যাল কাউন্সিলর মুশফিকুর রহমান, প্রবেশন অফিসার মাসুম বিল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
২০০৬ সালের ৮ এপ্রিল রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে হারিয়ে যায় নাঈম। এরপর থানা-পুলিশ-আদালত হয়ে তার ঠিকানা হয় যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র।
এই কেন্দ্রের সাইকো সোশ্যাল কাউন্সিলর মুশফিকুর রহমান বলেন, ২০০৭ সালের ১৪ মে আদালতের মাধ্যমে নাঈম যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে আসে। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু নাঈম নিজের নাম ছাড়া আর কিছুই বলতে পারে না। তার অভিভাবকের খোঁজে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করা হলেও পাওয়া যায়নি। সম্প্রতি একজন আনসার সদস্য বদলি হয়ে যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে যোগদান করেন। তার শ্বশুরবাড়ি নাঈমদের গ্রামে হওয়ায় তিনি ছেলেটিকে শনাক্ত করেন। এরপর নাঈমের বাবা-মাকে খবর দেওয়া হয়।
তিনি বলেন, নাঈমকে তার বাবা-মায়ের কাছে হস্তান্তরের সময় দশ হাজার টাকাও দেওয়া হয়েছে। এছাড়া তার এলাকা রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরে যোগাযোগ করা হয়েছে যাতে নাঈম প্রতিবন্ধী ভাতা পেতে পারে।
নাঈমের বাবা উমর আলী বিশ্বাস বলেন, তিনি রিকশা-ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান। তারপরও ছেলেকে খুঁজে পেতে নানাভাবে চেষ্টা করেছেন। এক পর্যায়ে হাল ছেড়ে দেন। ছেলেকে এভাবে খুঁজে পাবেন তা কল্পনাও করেননি তিনি।
যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, নাঈমের মতো আরো আটটি শিশু যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে রয়েছে, যাদের অভিভাবকের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। এই আটটি শিশুর কেউই নিজেদের নাম, ঠিকানা কিছুই বলতে পারে না। এদের বয়স আট থেকে ১৬ বছরের মধ্যে।

আরও পড়ুন