এবার ‘প্রাণের জন্য উপহার’ লাল সবুজের

আপডেট: 06:02:30 06/05/2020



img

চন্দন দাস, বাঘারপাড়া (যশোর) : করোনাকালীন সংকটে ঘরবন্দি থাকা কর্মহীন মানুষকে সহযোগিতা করতে এবার হটলাইন চালু করলো লাল সবুজ সংঘ। অসহায় মানুষের ফোন পেলেই খাদ্যসামগ্রী নিয়ে ছুটছেন সংগঠনটির সদস্যরা।
‘প্রাণের জন্য উপহার’ নামে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন তারা। এর আগে তারা ত্রাণ নয়, ‘ভালোবাসার উপহার’ হিসেবে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছিলেন করোনা সংকটে থাকা মানুষের বাড়ি বাড়ি। গত দুইদিনে ফোন কলের মাধ্যমে তারা দশ অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছেন বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। হটলাইনের দুটি নম্বর হলো ০১৬২৬-৫০৩০৮৮ ও ০১৭৭২-৪০২৫৫৫ ।
যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বাসুয়াড়ী ইউনিয়নের মাহমুদপুর গ্রামে ‘লাল সবুজ সংঘ’র প্রধান এবং একমাত্র কার্যালয়। একদল স্বপ্নবাজ তরুনদের সামাজিক এই কর্মকাণ্ডে খুশি সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী।
মাহমুদপুর গ্রামের বাসিন্দা ডাক্তার বশির আহমেদ বলেন, গ্রামের শিক্ষিত যুবকদের সামাজিক এই কর্মকাণ্ডে মুগ্ধ তারা।
স্থানীয় আরেক বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মনসুর আলী বলেন, ‘লাল সবুজ সংঘ’র সদস্যরা অসহায় মানুষের সেবা করে চলেছে। দিন-রাত পরিশ্রম করছে তারা। এটা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে।
‘একটি উন্নত সমাজ গঠনের দৃঢ় প্রত্যয়’ স্লোগান নিয়ে ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় সংগঠনটি। মূলত এ অঞ্চলের (বাসুয়াড়ী ইউনিয়ন) শিক্ষার্থীরাই একত্রিত হয়ে গড়ে তোলেন স্বেচ্ছাসেবী এই সংগঠনটি। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ৫৫ শিক্ষার্থী মিলে দাঁড় করিয়েছেন সংগঠনটি। ১৫ জন দাতা সদস্য ও এলাকার কয়েকজন সমাজসেবকের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা নিয়ে সামাজিক এই কর্মযজ্ঞ শুরু করেন তারা। এখনো তাদের কার্যক্রম বাসুয়াড়ী ইউনিয়নের মধ্যে সীমাবদ্ধ।
সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক সোহানুর রহমান বাপ্পী বলেন, ‘ইতিপূর্বে যাদেরকে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছি, তাদের সাথে যোগাযোগ রেখেছি আমরা। প্রয়োজন হলে আবার তাদেরকে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হবে। কর্মহীন অসহায় পরিবারে ঈদসামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনাও রয়েছে আমাদের।’
এ সময় আর্থিকভাবে যারা লাল সবুজ সংঘকে সহযোগিতা করছেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সোহানুর রহমান বাপ্পী।
স্থানীয় বাসুয়াড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরদার বলেন, ‘ নিঃসন্দেহে ভালো কাজ করছেন লাল সবুজ সংঘের তরুণরা। আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। চেয়ারম্যান হিসেবে তাদেরকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছি। তাদের পাশে ছিলাম, আছি, থাকবো।’
এর আগে দুই শতাধিক অসহায় পরিবারের মাঝে ‘ভালোবাসার উপহার’ নামে দশ দিনের খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেন সংগঠনটির স্বেচ্ছাসেবকরা।

আরও পড়ুন