কালিয়া হাসপাতালে ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’

আপডেট: 02:36:06 27/04/2020



img
img

নড়াইল প্রতিনিধি : কালিয়া পৌরসভার মেয়র ফকির মুসফিকুর রহমান লিটনের ব্যক্তিগত অর্থায়নে হাসপাতালের সামনে ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল সাড়ে দশটায় কালিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ চেম্বার উদ্বোধন করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন কালিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কৃষ্ণপদ ঘোষ, কালিয়া পৌরসভার মেয়র ফকির মুসফিকুর রহমান লিটন, কালিয়া হাসপাতালের আরএমও ডা. মো. মাসুম বিল্লাহ, কালিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার কান্তি কাজল মল্লিক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহিম শেখ, সাধারণ সম্পাদক রানা শেখ প্রমুখ।
কালিয়া পৌরসভার মেয়র ফকির মুসফিকুর রহমান লিটন বলেন, নড়াইল-১ আসনের সদস্য কবিরুল হক মুক্তির নির্দেশে ব্যক্তিগত অর্থায়নে ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ নির্মাণ করা হয়েছে। ডাক্তার নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এই উদ্যোগ। আশার কথা হচ্ছে, এখন পর্যন্ত কায়িয়ায় কোনো করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি।
কালিয়া হাসপাতালের আরএমও ডা. মো. মাসুম বিল্লাহ বলেন, সদস্য কবিরুল হক মুক্তি ডাক্তারদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। ডাক্তারদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে মেয়র কালিয়া হাসপাতালে ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ নির্মাণ করে দিয়েছেন। এতে ডাক্তাররা নিরাপত্তার মধ্যে চিকিৎসা সেবা দিতে পারবেন।
কালিয়া থেকে ২৪টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। কোনো রিপোর্ট পজেটিভ আসেনি।
করোনাভাইরাস বহন করে আসা কোনো রোগীর মাধ্যমে যাতে হাসপাতালের চিকিৎসক, সেবিকা এবং অন্যরা ঝুঁকির মধ্যে না পড়েন এবং রোগীরাও যাতে সুরক্ষিত থাকেন সেজন্য এ চেম্বার চালু করা হয়েছে।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন, কাচ দিয়ে ঘেরা এই চেম্বারের মধ্যে চিকিৎসক অবস্থান করবেন। সামনের দুটি ছিদ্র দিয়ে গ্লাভস পরা হাত বের করে রোগীর রক্তচাপ নির্ণয় করবেন এবং থার্মাল ডিটেক্টরের মাধ্যমে রোগীর শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করবেন। কোনো রোগীর শরীরের তাপমাত্রা করোনা উপসর্গের সঙ্গে মিলে গেলে তাকে করোনা ওয়ার্ডে পাঠানো হবে। আউটডোরে এবং জরুরি বিভাগে আসা রোগীরা এখান থেকেই সেবা নেবেন। যাদের ভর্তি করা প্রয়োজন তাদের সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডে পাঠানো হবে। তবে হাত-পা ভাঙা বা গুরুতর জখম রোগী জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নেবেন। চেম্বারে স্থাপন করা সাউন্ড সিস্টেমের মাধ্যমে চিকিৎসক এবং বাইরে থাকা রোগীর মধ্যে কথোপকথন হবে।
সার্বিক তত্ত্বাবধান করবে কালিয়া হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন