কালীগঞ্জে আওয়ামী লীগের সংঘর্ষ, ব্যাপক বোমাবাজি

আপডেট: 01:58:28 16/02/2020



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : কালীগঞ্জ উপজেলার পুকুরিয়া গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন। এ সময় কমপক্ষে ১৫টি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে।
রোববার সকাল নয়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
আহতরা হলেন, এরশাদ, আসাদুল ইসলাম, আব্দুল মান্নান মনা, হাফিজুর রহমান এবং মিলন। এদের মধ্যে আসাদুলের অবস্থা গুরুতর। তাকে কালীগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শিমলা-রোকনপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নাসির চৌধুরির সঙ্গে তার ভাইপো মিনি মালিথার বিরোধকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। দুইদিন আগে পুকুরিয়া গ্রামের ছমিরন্নেছা নামে এক গৃহবধূকে মারধর করে নাসির চেয়ারম্যানের সমর্থকরা। এরই জের ধরে রোববার সকালে নাসির চেয়ারম্যানের লোকজন আরেক প্রতিবেশীর বাড়িতে হামলা করে। এ সব ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষের সময় অন্তত ১৫টি বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।
ইউপি চেয়ারম্যান নাসির চৌধুরি বলেন, ‘রোববার সকালে আসাদুল ও আব্দুল মান্নান মনাকে মিনি মালিথার লোকজন মারধর করে। পরে আমরা সেখানে গেলে তারা বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়।’
অন্য পক্ষের নেতা মিনি মালিথা জানান, সন্ত্রাসীরা দুই দিন আগে এক গৃহবধূকে মারধর করে। আবার রোববার সকালে হাফিজুর রহমান নামে আরো একজনকে মারধর করে। এসব ঘটনার প্রতিবাদ করতে গেলে নাসির চেয়ারম্যান ও তার সমর্থকরা বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। বোমার বিস্ফোরণে হাফিজুর ও মিলন নামে দুইজন আহত হন।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত কালীগঞ্জ থানার এসআই আবুল খায়ের বলেন, ‘বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পুলিশ আসার পর কোনো বোমার বিস্ফোরণ ঘটেনি। আগে বিস্ফোরণ হয়েছে কিনা তেমন আলামত এখনো আমরা পাইনি।’

আরও পড়ুন