কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, মামলা হলো

আপডেট: 02:27:51 05/11/2019



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে আলোচিত কিশোরী গণধর্ষণের ঘটনায় কোতয়ালী থানায় মামলা হয়েছে। ভুক্তভোগী কিশোরীর মা মামলাটি করেছেন।
মামলায় আসামি করা হয়েছে শহরের শংকরপুর গোলপাতা মসজিদ এলাকার আব্দুল কুদ্দুসয়ের ছেলে পুষ্প (২০), লোন অফিসপাড়ার আবুল কালাম আজাদের ছেলে হৃদয়, আব্দুর রশিদের ছেলে মামুন (২০), শংকরপুর গোলপাতা মসজিদ এলাকার মামুন (২০)-সহ অজ্ঞাত তিনজনকে।
অভিযোগে বলা হয়েছে, শহরের ৬২ লোন অফিসপাড়ার  মৃত খায়রুল ইসলামের স্ত্রী শামসুন্নেছা ওরফে শেলির বসতবাড়ির তৃতীয় তলায় ভাগ্নে হৃদয়ের ভাড়াটিয়া বাসার শয়নকক্ষে গত ১ নভেম্বর রাত সাড়ে নয়টা থেকে ২ নভেম্বর সকাল দশটা পর্যন্ত ওই কিশোরীকে (১৫) বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি দেখিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে আসামিরা।
এজাহারে বলা হয়, গত ১ নভেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় তার মেয়ের বান্ধবী মুসকান  ফোন করে তার বাড়িতে যেতে বলে। ফোন পাওয়ার পর মেয়েটি পৌনে সাতটার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়। মুসকানের বাড়ি যাওয়ার পথে বকচর র‌্যাব অফিসের সামনে থেকে মেয়েটির পূর্ব পরিচিত কয়েকজনের সঙ্গে দেখা হয়। তারা মেয়েটিকে ফুঁসলিয়ে এবং বিভিন্ন রকম প্রলোভন দেখিয়ে শেলির বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তারা কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

আরও পড়ুন