কী ঘটেছিল সেদিন জঙ্গলে?

আপডেট: 08:27:04 24/01/2021



img

আব্দুস সামাদ, সাতক্ষীরা : বাঘের আক্রমণ থেকে ‘ভাগ্যক্রমে বেঁচে যাওয়া’ সেই আবু মুছা (৪১) নিজগ্রামে ফিরেছেন।
তিনি সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের পশ্চিম কৈখালী গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে।
তিনি বলেন, 'আমাকেসহ একই এলাকার কফিলউদ্দিনের ছেলে রতন (৪২) এবং মনো মিস্ত্রির ছেলে মিজানুর রহমানকে (৪০) একটি চক্র মোটা টাকার প্রলোভন দেখায়। আমরা সেই প্রলোভনে গহীন জঙ্গলের ভেতর দিয়ে চোরাইপথে ভারতে গরু আনতে যাই। নদীপথে যাওয়ার সময় রাত হয়ে যায়। জঙ্গলের পাশে সাতঝিলের খাল নামক স্থানে নৌকা রেখে রাত কাটাই। ভোরে নৌকার ওপর একটি বাঘ লাফিয়ে পড়ে। তিনজনের মধ্যে বাঘ টার্গেট করে মিজানকে। তাকে বাঁচাতে রতন বাঘের পরে হামলা করে। বাঘ তখন মিজানকে রেখে রতনের ওপর হামলা করে তাকে মেরে ফেলে। এরপর মিজানকে নিয়ে বাঘটি জঙ্গলের ভেতরে চলে যায়। বাঘ আক্রমণ করলে মুছা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নৌকার তলায় নাক বের করে প্রাণে বেঁচে যায়। এরপর কৌশলে নৌকার বাঁধন খুলে ভাটির টানে দূরে চলে যাই। এক সময় আবার উজানে নৌকা বাইতে থাকে। এভাবে দিক ও পথ হারিয়ে ফেলে মুছা। এসময় নৌকার ওপর থাকা একটি মোবাইল ফোন আচমকা বেজে উঠলে মুছা সেই ফোন থেকে বাড়িতে খবর দেয়। এরপর থেকে নেটওয়ার্ক টাওয়ার না থাকায় তিনি কথা বলতে পারিনি।'
আবু মুছা জানান, ভারতীয় সীমান্তে মাছধরা জেলেরা তাকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে সেদেশের একটি বাড়িতে আশ্রয় দেয়। এরপর তাদের সহযোগিতায় তিনি সীমান্তের বকচর নামক স্থান দিয়ে দেশে ফেরেন।
২৪ জানুয়ারি সকালে মুছার পরিবারের লোকজন সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে। বাড়িতে ফিরে আসার পর আবু মুছা কিছুটা অস্বাভাবিক আচরণ করতে থাকেন। স্থানীয় চিকিৎসায় তিনি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে ঘটনার বিবরণ দেন।
আবু মুছা আরো জানান, এই প্রথম তিনি প্রলোভনে পড়ে ভারতে গরু আনতে যান। দীর্ঘদিন বাড়িতে থাকায় কারণে অর্থকষ্টে ছিলেন। একই এলাকার মামুন, আজিজুল, সোহরাবসহ কয়েকজন তাদের গরু আনতে পাঠান। এ চক্রের সাথে তার ভগ্নিপতি মিজানুর এবং রতনও জড়িত ছিলেন।
সাতক্ষীরা নীলডুমুর বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা রোববার বিকেলে আবু মুছাকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে মুছা ওই একই কথা বলছে বলে জানায় সূত্র।
এদিকে, পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বনসংরক্ষক এমএ হাসান জানান, ঘটনার পর থেকেই মুছা তার মোবাইল ফোন বন্ধ রেখে আত্মগোপনে ছিলেন। তিনি প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করতে নাটক করছেন। স্থানীয় খবরের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি আরো বলেন, মুছা ভারতে না, দেশেই ছিলেন। তবে আত্মগোপনে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে সুন্দরবন থেকে তিনজনের নিখোঁজ সংক্রান্তে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়। নিখোঁজ তিনজনকে মৎস্যজীবী বলা হলেও তারা মূলত চোরাকারবারি বলে জানায় একাধিক সূত্র।

আরও পড়ুন