কৃষকের হয়রানি মেনে নেওয়া হবে না : স্বপন

আপডেট: 02:42:52 20/05/2020



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : করোনাভাইরাসের কারণে দেশ এক ভয়াবহ বিপর্যয়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে মন্তব্য করে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন, করোনা ও খাদ্য সমস্যা মোকাবেলা করেই প্রধানমন্ত্রী তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে দেশে কোনো খাদ্য সমস্যা থাকবে না।
বুধবার দুপুরে মণিরামপুর খাদ্যগুদামে বোরো ধান ও চাল সংগ্রহ কার্যক্রম উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী স্বপন।
সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কারো অবহেলায় সরকারের খাদ্য সংগ্রহের পরিকল্পনা যেন ভেস্তে না যায়। কৃষকের হয়রানি কোনোভাবে মেনে নেওয়া হবে না। গুদামে আনার আগে ইউনিয়নভিত্তিক উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের দিয়ে কৃষকের ধান পরীক্ষা করাতে হবে। গুদামে ধান নিয়ে এসে কোনো কৃষক যেন ফিরে না যান। একবার কৃষক ফিরে গেলে পরে আর তিনি গুদামে আসবেন না। ফলে সরকারের ‘কৃষক বাঁচানো’র পরিকল্পনা ভেস্তে যাবে। সুতরাং সংশ্লিষ্ট সকলকে সচেতন থেকে কাজ করতে হবে।
মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান উল্লাহ শরিফীর সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র কাজী মাহমুদুল হাসান, সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হীরককুমার সরকার, থানার ওসি রফিকুল ইসলাম, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মামুন হোসেন খান, খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সেলিম, মণিরামপুর চালকল মালিক সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি আরিফুল ইসলাম, লটারি বিজয়ী কৃষক আজম গাজী প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
চলতি বোরো মৌসুমে মণিরামপুর খাদ্যগুদামের মাধ্যমে চার হাজার এক মেট্রিক টন ধান ও দুই হাজার ৬৮০ টন চাল সংগ্রহ করবে সরকার। সেই লক্ষ্যে ইতিমধ্যে ইউনিয়নভিত্তিক লটারির মাধ্যমে চার হাজার একজন কৃষক বাছাই করা হয়েছে। প্রতি কৃষক এক হাজার ৪০ টাকা মণ দরে এক টন করে ধান বিক্রি করতে পারবেন।
আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সংগ্রহ কার্যক্রম চলবে বলে জানান উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মামুন হোসেন খান।

আরও পড়ুন