কোটচাঁদপুরে পুকুরে ডুবে দুই মাদরাসাছাত্রের মৃত্যু

আপডেট: 02:58:19 14/08/2020



img

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : কোটচাঁদপুরে পানিতে ডুবে নিখোঁজের ১৪ ঘণ্টা পর পুকুর থেকে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার করেছেন এলাকাবাসী।
হতভাগ্য শিশু দুটি হলো উপজেলার রাজাপুর হাফিজিয়া আল-হেরা মাদরাসার ছাত্র জাকারিয়া হোসেন চঞ্চল (১১) ও মিশন হোসেন (১০)। এরা ওই মাদরাসার ছাত্রাবাসে থেকে নুরানি বিভাগে পড়তো।
শুক্রবার ভোর ছয়টার দিকে উপজেলার সাফদারপুর ইউনিয়নের রাজাপুর বহিরগাছি মাঝেরপাড়া গ্রামের মুকুল হোসেনের পুকুর থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
জাকারিয়া হোসেন চঞ্চল কোটচাঁদপুর উপজেলার বলুহর গ্রামের ঢালিপাড়ার বাহাদুর আলীর ছেলে। আর মিশন কালীগঞ্জ উপজেলার ষাটবাড়িয়া গ্রামের ফুরকান আলীর ছেলে। তার মা স্বামী পরিত্যক্তা। যে কারণে ওই গ্রামের খালাতো ভাই জাহিদ তাকে দেখাশুনা করতেন।
মাদরাসাটির শিক্ষক মো. আকিমুল ইসলাম জানান, মাদরাসার মধ্যে অবস্থিত মসজিদে মিস্ত্রিরা কাজ করছে। এই কারণে বৃহস্পতিবার দুপুরে ছাত্ররা পাশের একটি পুকুরে গোসল করতে যায়। বেলা একটার দিকে গোসল করে তারা ফিরে আসে। বিকেল পাঁচটার দিকে খেলা শেষে সবার অজান্তে জাকারিয়া ও মিশন আবার ওই পুকুরে গোসল করতে যায়। সন্ধ্যার পর মাদরাসায় তাদেরকে দেখতে না পেয়ে উপস্থিত ছাত্রদের কাছে তাদের খোঁজ নেওয়া হয়। পরে নিখোঁজের ঘটনা জানিয়ে গ্রামবাসী ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রাতে খোঁজাখুঁজি করেও তাদেরকে পাওয়া যায়নি।
ওই শিক্ষক জানান, শুক্রবার ভোরে ওই পুকুরপাড়ের এক বাসিন্দা একটি লাশ ভাসতে দেখে এলাকাবাসীকে খবর দেন। পরে স্থানীয়রা পুকুরটি থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করেন।
একই তথ্য দিয়েছে ওই মাদরাসার ছাত্র জনি, জাহিদ হাসান ও রিয়াদ নামে তিনজন।
খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান কোটচাঁদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহবুবুল আলম। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে অন্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গে জাকারিয়া ও মিশন গোসল করতে যায়। গোসল শেষে মাদরাসায় ফিরে এলেও জাকারিয়া ও মিশন তাদের জুতা ফেলে রেখে আসে। পরে জুতা আনতে গিয়ে তারা নিখোঁজ হয়। সন্ধ্যার পর ফিরে না আসায় অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাদের পাওয়া যায়নি। শুক্রবার সকালে মাদরাসার পাশের ওই পুকুরে তাদের মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

আরও পড়ুন