গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, শাশুড়ি আটক

আপডেট: 07:35:29 27/02/2021



img

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার লোকনাথপুর গ্রামে নুরজাহান খাতুন (৪০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পরপরই স্বামী পালিয়ে গেছেন। তবে, শাশুড়ি নুরজাহান বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।
শুক্রবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই গৃহবধূ মারা যান। দুই সন্তানের জননী নুরজাহান খাতুন লোকনাথপুর গ্রামের মাঝপাড়ার জাহান আলীর স্ত্রী এবং  দর্শনা পৌরসভার রামনগর এলাকার আজিজুল হকের মেয়ে।
নুরজাহানের মা রহিমন বেগম ও ভাই সুন্নত বলছেন, জাহান আলী ও তার মা নূরজাহানকে মারধর করতো। এরআগে একবার তালাক নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু দুটি সন্তানের কথা ভেবে আবার সংসার পাতিয়ে দেন এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। জাহানের নির্যাতনে অবশেষে গৃহবধূর মৃত্যু হলো।
হাউলী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য রিকাত আলী বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় গৃহবধূকে। ভোররাত চারটার দিকে তিনি মারা যান। ওই গৃহবধূর শরীরের সমস্ত জায়গায় নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে। মাথায় ও চোখে নির্মমভাবে আঘাত করা হয়। শনিবার সকালে পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেছে।
প্রতিবেশীদের বরাত দিয়ে দামুড়হুদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল খালেক জানান, যৌতুকের দাবিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই গৃহবধূকে কয়েকদফা মারপিট করে তাকে বাড়িতে ফেলে রাখা হয়। শুক্রবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয় শ্বশুরবাড়ির লোকজন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
এ ঘটনায় নিহতের ভাই সুন্নত আলী দামুড়হুদা থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

আরও পড়ুন