চৌগাছায় কাঁঠা‌লের ফলন বিপর্যয়

আপডেট: 07:29:55 08/06/2021



img

চৌগাছা (য‌শোর) প্রতি‌নি‌ধি: চল‌তি মৌসু‌মে অ‌তি খরায় য‌শো‌রের চৌগাছা এলাকায় কাঁঠা‌লের ফলন বিপর্যয় হ‌য়ে‌ছে। চাষষিদের মা‌ঝে নে‌মে এ‌সে‌ছে চরম হতাশা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চৌগাছা উপ‌জেলায় প্রায় পাঁচশ হেক্টর জ‌মি‌তে কাঁঠাল গা‌ছের আবাদ র‌য়ে‌ছে। স্থানীয় চা‌হিদা মি‌টি‌য়ে প্রতি বছর এ উপ‌জেলা থে‌কে শত শত ট্রাক কাঁঠাল দে‌শের দ‌ক্ষিণাঞ্চলীয় জেলা ব‌রিশাল, বরগুনা, পটুয়াখা‌লি, খুলনা ও পি‌রোজপুর এলাকায় যায়। উপ‌জেলার সব ইউ‌নিয়নে কম বে‌শি কাঁঠাল উৎপাদন হ‌লেও উপ‌জেলার জগদীশপুর, পা‌তি‌বিলা, হা‌কিমপুর, নারায়ণপুর ও স্বরুপদাহের গ্রামগু‌লো‌তে ব‌্যাপক কাঁঠাল উৎপাদন হ‌য়ে থা‌কে। কিন্তু এবার ভরা মৌসুমে চৌগাছার হাটবাজা‌রে এখনও কাঁঠা‌লের দেখা নেই বল‌লেই চ‌লে। যা বাজা‌রে আস‌ছে তাও স্থানীয় চা‌হিদার তুলনায় খুবই কম।
বা‌দেখানপুর গ্রা‌মের কাঁঠাল চাষি চৌগাছা এ‌বি‌সি‌ডি ক‌লে‌জের প্রভাষক মাহমুদুল হাসান ব‌লেন, আমার বাগা‌নে ব‌্যাপক কাঁঠাল ধ‌রে; যা বি‌ক্রি কর‌তে গি‌য়ে হিম‌শিম খে‌তে হয়। কিন্তু এবার গাছে যে কাঁঠাল এসে‌ছে, তা‌ নি‌জের প‌রিবা‌রের চা‌হিদা মেটা‌নোও সম্ভব হ‌চ্ছে না।
টেঙ্গুরপুর গ্রা‌মের কালু মোল্ল‌্যা বলেন, পা‌রিবা‌রিকভা‌বে বেশ ক‌য়েক‌টি কাঁঠাল গাছ আ‌ছে। ফি বছর গাছগু‌লো‌য় প্রচুর সংখ্যক কাঁঠাল ধ‌রে। কিন্তু এ বছর গা‌ছে কাঁঠাল নেই বল‌লেই চ‌লে।
ইছাপুর এলাকার শ‌হিদুজ্জামান খোকন ব‌লেন, আগে যে কাঁঠাল ধ‌রতো তা বি‌ক্রি কর‌তে ক্রেতা পেতাম না। এ বছর গা‌ছে যা কাঁঠাল এ‌সে‌ছে তা‌তে অল্প কিছু বি‌ক্রি করা যা‌বে। অন‌্য বছ‌রের তুলনায় তিনভা‌গের এক ভাগ কাঁঠাল ধ‌রে‌ছে বলে তিনি জানান।
জান‌তে চাই‌লে চৌগাছা উপ‌জেলা কৃ‌ষি কর্মকর্তা সম‌রেন বিশ্বাস ব‌লেন, এবার দীর্ঘদিন খরা হওয়ায় কাঁঠালের ফলন কম হ‌তে পা‌রে। এছাড়া আমা‌দের চাষিরা সাধারণত কাঁঠাল গা‌ছের প‌রিচর্যা করেন না। যার ফ‌লে কাঁঠাল উৎপাদনে ধ্স নাম‌তে পা‌রে।
এক প্রশ্নের জবা‌বে চৌগাছা উপ‌জেলা স্বাস্থ‌্য ও প‌রিবার প‌রিকল্পনা কমকর্তা ডাক্তার লুৎফুন নাহার  ব‌লেন, আমা‌দের দে‌শের প্রায় সবাই কাঁঠাল খায়। ত‌বে দ‌রিদ্র মানু‌ষই বে‌শি কাঁঠাল খে‌য়ে থা‌কে। যে কার‌ণে তা‌দের অজা‌ন্তেই শরী‌র পু‌ষ্টি, ভিটা‌মিনসহ নানা উপাদান পে‌য়ে থা‌কে। তিনি জানান, প্রতি ১০০ গ্রাম কাঁঠালে খাদ্য-আঁশ থাকে দুই গ্রাম, শর্করা ২৪ গ্রাম, চর্বি দশমিক ৩ মিলিগ্রাম, ক্যালসিয়াম ৩৪ মিলিগ্রাম, ম্যাগনেশিয়াম ৩৭ মিলিগ্রাম, পটাশিয়াম ৩০৩ মিলিগ্রাম, ভিটামিন এ ২৯৭ আইইউ ও ভিটামিন-সি ৬ দশমিক ৭ মিলিগ্রাম। কাঁচা কাঁঠাল রোগব্যাধি উপশমে যেমন কার্যকর, অন্যদিকে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে দেয় অনেক গুণ। এমনকি কাঁঠালের বিচিতেও আছে শর্করা। কাঁঠালে থাকা ভিটামিন এ-র কল্যাণে মাথার চুল ভালো থাকে, দৃষ্টিশক্তি বাড়ে ও চোখের সমস্যা কমে। এতে থাকা ভিটামিন সি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, অ্যাজমা, কাশি, সর্দি ও ক্যানসারের মতো রোগ দূর করে। এর ভিটামিন বি৬ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রেখে হৃদ্রোগের ঝুঁকি কমায়।
উৎপাদন কম হওয়া‌য় বাজা‌রে কাঁঠা‌লের মূল‌্য থাক‌বে বে‌শি এবং জনগণ তুলনামূলক কম খা‌বে। ফলশ্রু‌তি‌তে জনগ‌ণের স্বা‌স্থ্যে উপর এর প্রভাব পড়‌বে এটাই স্বাভা‌বিক।

আরও পড়ুন