জিরা পানিতে ওজন হ্রাস

আপডেট: 08:25:37 04/04/2021



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : রান্নাঘরে পাওয়া যায় এমন উপাদানগুলোর মধ্যে জিরা অন্যতম। জিরার বিভিন্ন স্বাস্থ্য সুবিধা রয়েছে। এটি অনেক রোগের ওষুধ হিসেবেও কাজ করে। জিরা ওজন হ্রাস করে, হজমক্রিয়া ভালো রাখে, টক্সিন নির্মূল করে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। যদি আপনি ওজন হ্রাস করতে চান, তবে জিরা পানির চেয়ে ভাল আর কিছু নেই! ওজন কমাতে জিরা পানি খাওয়ার উপকারিতা এবং ডায়েটে যুক্ত করার সর্বোত্তম উপায়গুলো সম্পর্কে জেনে নিন।

ওজন কমানোর জন্য জিরা পানি
ডায়েটে জিরা যোগ করার বহুমুখী স্বাস্থ্যগত সুবিধা রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, হজমে সহায়তা এবং পাকস্থলি থেকে অযাচিত টক্সিন অপসারণে জিরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। একটি ভাল পাচনতন্ত্র যেকোন ধরণের টক্সিন পরিষ্কার করা ওজন কমানো এবং চর্বি হ্রাস করে। জিরা চর্বি পোড়া প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে, যা ওজন হ্রাস করা সহজ করে তোলে।

জিরা পানিতে ভিজলে কী হয়?
জিরার বীজ পানিতে ভিজিয়ে রাখার ফলে অ্যাসোসিস হয়। এটি একটি প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে বীজ পানি ধরে রাখে এবং তার পরিবর্তে পানিতে পুষ্টিকর উপাদান বের করে দেয় যা পরে পান করা যায়।পুষ্টিকর পাশাপাশি পানীয়টিতে হলুদ রঙের মিশ্রণ যোগ করে।
জিরা চর্বি পোড়া প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে।

এটিতে কত ক্যালরি থাকে?
জিরাতে কেবল ৭ ধরনের ক্যালোরি রয়েছে। এটি একাধিকবার ডিটক্স পানীয় হিসেবে পান করা যায়। এত কম ক্যালোরিযুক্ত পানীয় হওয়া সত্ত্বেও এটি ভালো ফল দেয়। খাওয়ার আগে জিরা পানি পান করা বা অতিরিক্ত ক্ষুধার্ত থাকলে জিরা পানি খেলে এটি ক্ষুধা যন্ত্রণা কমিয়ে দেয়।

দিনে কতবার জিরা পানি পান করা উচিত?
জিরা পুষ্টিকর স্বাস্থ্য সুবিধায় পূর্ণ একটি দুর্দান্ত ডিটক্সাইফিং উপাদান। এটি দিনে কত বার পান করা উচিত তা আপনার লক্ষ্য কী এবং প্রয়োজনীয়তার উপরও নির্ভর করে। দ্রুত ওজন হ্রাস করার জন্য, দিনের মধ্যে ৩-৪ বার জিরা পানি খেতে পারেন। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে (ডিটক্সিং পানীয় হিসাবে) ভারী খাবারের আগে যেমন মধ্যাহ্নভোজ (তৃপ্তিকে প্ররোচিত করতে) এবং রাতের খাবারের পরে (হজমে সহায়তা করতে)।
সূত্র- বার্তা ২৪