থামছে না মাদক পাচার

আপডেট: 06:48:40 24/09/2020



img

জয়নাল আবেদীন, শার্শা (যশোর): শার্শা সীমান্ত পথে বিজিবি-পুলিশের জোর চেষ্টা সত্ত্বেও বন্ধ হচ্ছে না ভারত থেকে মাদকদ্রব্য আনা। থেমে নেই আগ্নেয়াস্ত্র, সোনা, মুদ্রাসহ নানা পণ্যের চোরাচালান।
গত এক বছরে এ সীমান্তের কেবল বিজিবির ৪৯ ব্যাটালিয়নের হাতেই মাদক, আগ্নেয়াস্ত্র, সোনা ও বৈদেশিক মুদ্রাসহ প্রায় দেড়শ’ কোটি টাকার চোরাচালান পণ্য আটক হয়েছে। এর মধ্যে কেবল ফেনসিডিলই রয়েছে ২২ হাজার বোতল।
স্থানীয়রা মনে করেন, শুধু বিজিবি, পুলিশের প্রচেষ্টায় মাদক পাচার রোধ করা কঠিন। যেহেতু ভারত থেকে মাদক আসছে, তাই ওই দেশের সীমান্তরক্ষী বিএসএফের আন্তরিক সহযোগিতার প্রয়োজন রয়েছে। আর বিজিবি ও পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, তারা সব ধরনের পাচার রোধে আন্তরিক হয়ে কাজ করছেন। ইতিমধ্যে পাচারকারীদের তালিকাও হয়েছে। সবার সহযোগিতা পেলে পাচার কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণে আসা সম্ভব।
যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ ও উন্নত হওয়ায় শার্শা সীমান্ত দিয়ে মালামাল আনা-নেওয়া করতে চায় চোরাচালানিরা। সীমান্তের কোথাও কোথাও এমনভাবে মানুষের বসবাস, শনাক্ত করা কঠিন কোনটা বাংলাদেশ আর কোনটা ভারত। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে পাচারকারীরা এপার-ওপার যাতায়াত করে থাকে। ফলে মাদকদ্রব্যসহ বিভিন্ন চোরাচালান পণ্য ঢুকে পড়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে।
গত এক বছরে যশোরের বেনাপোল (শার্শা উপজেলার অন্তর্ভুক্ত) সীমান্ত এলাকা থেকে প্রায় দেড়শ’ কোটি টাকা মূল্যের মাদক, আগ্নেয়াস্ত্র, সোনা ও বৈদেশিক মুদ্রাসহ বিভিন্ন ধরনের চোরাচালান পণ্য আটক হয়েছে।
বেনাপোলের বাসিন্দা জুলফিকার আলী মন্টু বলছেন, ‘সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে মাদকের বড় বড় চালান ঢুকছে দেশে। এতে আমাদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কায় আছি। প্রতিবেশী দেশের সীমান্ত রক্ষী ও রাষ্ট্র আন্তরিক না হলে শুধু বিজিবির পক্ষে মাদক পাচার রোধ কঠিন।’
গোগা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ এবং পুটখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার হাদিউজ্জামান মনে করেন, মাদক ব্যবসায়ীদের জামিন বিলম্বিত করা গেলে মাদকপাচার প্রতিরোধে কিছুটা হলেও ভূমিকা রাখতে পারে।
বিজিবি ৪৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল সেলিম রেজা বলেন, ভারত থেকে মাদক এসে ছড়িয়ে পড়ছে দেশের অভ্যন্তরে। সবার সহযোগিতা পেলে দ্রুতই পাচার  নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে।
বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুন খান জানান, তারা ইতিমধ্যে মাদক পাচারকারীদের তালিকা করে আটক অভিযান অব্যাহত রেখেছেন।

আরও পড়ুন