দেশে করোনা রোগী শনাক্ত সাড়ে পাঁচ লাখ ছুঁইছুঁই

আপডেট: 04:34:08 06/03/2021



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত একদিনে আরো দশজনের মৃত্যু হয়েছে, নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে আরো ৫৪০ জন।
শনিবার বিকেলে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত একদিনে মারা যাওয়া দশজনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আট হাজার ৪৫১ জনের মৃত্যু হলো।
আর গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৫৪০ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে পাঁচ লাখ ৪৯ হাজার ৭২৪  জন হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসেবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরো ৮২২ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত একদিনে। তাতে এ পর্যন্ত সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে পাঁচ লাখ এক হাজার ৯৬৬ হয়েছে।
বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গতবছর ৮ মার্চ; তা সোয়া পাঁচ লাখ পেরিয়ে যায় গত ১৪ জানুয়ারি। এর মধ্যে গত বছরের ২ জুলাই চার হাজার ১৯ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়, যা এক দিনের সর্বাধিক শনাক্ত।
প্রথম রোগী শনাক্তের দশদিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ বছর ২৩ জানুয়ারি তা আট হাজার ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে গত বছরের ৩০ জুন একদিনেই ৬৪ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়, যা এক দিনের সর্বাধিক মৃত্যু।
বিশ্বে শনাক্ত কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ইতোমধ্যে ১১ কোটি ৬১ লাখ পেরিয়েছে, মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৫ লাখ ৮১ হাজার।
জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় বিশ্বে শনাক্তের দিক থেকে ৩৩তম স্থানে আছে বাংলাদেশ, আর মৃতের সংখ্যায় রয়েছে ৩৯তম অবস্থানে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১৮টি আরটি-পিসিআর ল্যাব, ২৯টি জিন-এক্সপার্ট ল্যাব ও ৭২টি র্যাপিড অ্যান্টিজেন ল্যাবে অর্থাৎ সর্বমোট ২১৯টি ল্যাবে ১৩ হাজার ৮২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৪১ লাখ ৩২ হাজার ১১৩টি নমুনা।
২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ৪ দশমিক ১৩ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৩০ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ৩১ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।
সরকারি ব্যবস্থাপনায় এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩১ লাখ ৭৫ হাজার ৭৭৯টি। আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হয়েছে নয় লাখ ৫৬ হাজার ৩৩৪টি।
গত এক দিনে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে সাতজন পুরুষ এবং তিনজন নারী। তারা সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন।
মৃতদের চারজনের বয়স ৬০ বছরের বেশি এবং তিনজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে। দুইজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে এবং একজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ছিল।
মৃতদের মধ্যে চারজন ঢাকা বিভাগের, দুইজন চট্টগ্রাম বিভাগের, দুইজন রাজশাহী বিভাগের এবং খুলনা ও বরিশাল বিভাগের একজন করে বাসিন্দা ছিলেন।  
দেশে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া আট হাজার ৪৫১ জনের মধ্যে ছয় হাজার ৩৮৮ জন পুরুষ এবং দুই হাজার ৬৩ জন নারী।
তাদের মধ্যে চার হাজার ৭০৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। এছাড়াও দুই হাজার ৯২ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৯৫৭ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৪২৩ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১৭৩ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, ৬৪ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং ৩৭ জনের বয়স ছিল ১০ বছরের কম।
এর মধ্যে চার হাজার ৭২৯ জন ঢাকা বিভাগের, এক হাজার ৫৫৫ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৪৮১ জন রাজশাহী বিভাগের, ৫৬২ জন খুলনা বিভাগের, ২৫৪ জন বরিশাল বিভাগের, ৩১১ জন সিলেট বিভাগের, ৩৬৩ জন রংপুর বিভাগের এবং ১৯৬ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।
সূত্র : বিডিনিউজ

আরও পড়ুন