নড়াইলে বিদেশফেরতরা ঘুরে বেড়াচ্ছেন যত্রতত্র

আপডেট: 08:54:00 17/03/2020



img

মৌসুমী নিলু, নড়াইল : নড়াইলে বিদেশফেরত ব্যক্তিদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এদের বড় অংশ হোম কোয়ারেন্টাইনে না থেকে যত্রতত্র ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বাইরে ঘোরাঘুরি করতে নিষেধ করা হলেও তারা তা মানছেন না।
আইনশৃংখলা বাহিনীকে বিষয়টি দেখতে বলা হলে তারা বলছেন, এটি স্বাস্থ্য বিভাগের দায়িত্ব। এদিকে স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, একার পক্ষে পরিস্থিতি মোকাবেলা করা সম্ভব না। সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।
জেলার কালিয়া উপজেলার চাঁচুড়ি ইউনিয়নের চাঁচুড়ি গ্রামে লোকমান হোসেন নামে এক যুবক মাত্র কয়েকদিন আগে ফ্রান্স থেকে নিজ এলাকায় এসেছেন। তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে না থেকে এলাকায় ঘোরাঘুরি করছেন। স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি বাড়ির বাইরে বের হতে নিষেধ করলেও তিনি তা মানছেন না।
এ ব্যাপারে স্থানীয় মনোরঞ্জন কাপুড়িয়া কলেজের অফিস সহকারী কবি সিপন সোহাগ বলেন, লোকমানের বিষয়টি কালিয়া থানার ওসিকে জানানো হয়। ওসি বলেছেন, ‘বিষয়টি স্বাস্থ্য বিভাগকে জানান, এটা তাদের দায়িত্ব।’
সম্প্রতি নড়াইল শহরের দক্ষিণ নড়াইল ও মহিষখোলা এলাকায় দুজন বিদেশ থেকে ফিরেছেন। প্রশাসন থেকে এবং জনপ্রতিনিধি হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা দিলেও তারা তা মানছেন না।
নড়াইলের সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল মোমেন বলেন, জেলায় এখন পর্যন্ত ২০ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। বিদেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের পর্যবেক্ষণে আইনশৃংখলা বাহিনী, প্রশাসন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার এবং বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ এগিয়ে না এলে পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিতে পারে। এই সমস্যা শুধু স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে সামলানো সম্ভব না বলে মন্তব্য করেন সিভিল সার্জন।
নড়াইলে করোনা পরীক্ষার জন্য থার্মাল স্ক্যানার, শনাক্তের জন্য কিটস, প্রয়োজনীয় পোশাক এবং জরুরি সেবা দেওয়ার জন্য কোনো আইসিইউ-এর ব্যবস্থা নেই।
তবে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের জন্য সদর হাসপাতালে দশটি, কালিয়া ও লোহাগড়া হাসপাতালে পাঁচটি করে শয্যার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এছাড়া জেলায় একটি মেডিকেল টিম, একটি র‌্যাপিড রেসপন্স টিম, তথ্য আদান-প্রদানের জন্য একটি কন্ট্রোল টিম গঠন করা হয়েছে। জনগণকে সদর হাসপাতালের হটলাইন (০১৭৩০-৩২৪৮০১) নম্বরে যোগাযোগের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। করোনা শনাক্তের জন্য আইইডিসিআর-এর হটলাইনের মাধ্যমে স্যাম্পল কালেকশনের ব্যবস্থা রয়েছে।

আরও পড়ুন