নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক হত্যার জট খুলছে!

আপডেট: 06:54:21 31/10/2020



img

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত কলেজশিক্ষক অরুণ রায় হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুইজনকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ। পুলিশ বলছে, ওই দুইজন প্রাথমিকভাবে তারা হত্যার কথা স্বীকার করেছে। হত্যায় ব্যবহৃত ছুরিও উদ্ধার হয়েছে বলে পুলিশের দাবি। তবে হেফাজতে থাকায় আটক দুইজনের বক্তব্য জানা যায়নি।
আটক দুইজন হলেন, সদর উপজেলার তুলারামপুর ইউনিয়নের ব্যানাহাটি গ্রামের নরোত্তম দত্তের ছেলে একাদশ শ্রেণির ছাত্র রাজু দত্ত (১৮) এবং তার বন্ধু পাশের যশোর জেলার বাঘারপাড়া উপজেলার জামদিয়া ইউনিয়নের দোগাছি গ্রামের কৃষ্ণ বিশ্বাসের ছেলে দিপু বিশ্বাস (১৮)।
নড়াইল সদর থানা পুলিশ বলছে, পুলিশ শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) রাতে রাজু দত্তকে ব্যানাহাটি গ্রামের একটি মাছের ঘের থেকে এবং শনিবার সকালে দোগাছি গ্রামে বিলের মধ্যে থেকে দিপুকে আটক করা হয়।
নিহতের এক নিকটাত্মীয় জানান, শনিবার সকাল নয়টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত নিহতের বাড়ির পূর্ব পাশের একটি ডোবা থেকে পুলিশ তার ব্যবহৃত চাবির ছড়া (এতে ২১টি চাবি ছিল), বাড়ির ফল কাটা ছুরি এবং হত্যাকারীদের ব্যবহৃত একটি টুপি উদ্ধার করে। তিনি বলেন, রাজু ও দিপু নেশাসক্ত এবং এলাকায় ‘খারাপ ছেলে’ হিসেবে পরিচিত। একদিন কলেজশিক্ষক অরুণ রায় তাদের নেশা করতে নিষেধ এবং বকাবকি করেন। এ কারণে তাকে হত্যা করতে পারে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার ইনসপেক্টর (অপারেশন) শিমুলকুমার দাস বলেন, প্রাথমিকভাবে ওই দুইজন অরুণকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে এবং একটি ছুরিও পাওয়া গেছে। এখনো ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি নেওয়া হয়নি। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে রোববার (১ নভেম্বর) হয়তো এ ব্যাপারে একটি সংবাদ সম্মেলন করা হতে পারে। তখন বিস্তারিত জানানো হবে।
পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন বলেন, আটক দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। হত্যার কিছু আলামতও পাওয়া গেছে। এসব যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।
গত ২৩ অক্টোবর রাত আটটার দিকে সদর উপজেলার তুলরামপুর ইউনিয়নের ব্যানাহাটি গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে অবসরপ্রাপ্ত কলেজশিক্ষক অরুণ রায়ের গলাকাটা লাশ উদ্ধার হয়। বাড়িটিতে তিনি একা থাকতেন।
এই হত্যার ঘটনায় ২৪ অক্টোবর নিহতের স্ত্রী সরকারি পদস্থ কর্মকর্তা নিভারানী পাঠক সদর থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন।

আরও পড়ুন