পর্দা উঠছে এসএ গেমসের

আপডেট: 06:30:08 01/12/2019



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : নেপালের স্থানীয় সময় বিকেল পাঁচটায় দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে উদ্বোধন হবে সাউথ এশিয়ান গেমসের ১৩তম আসর। রাষ্ট্রপতি বিদ্যাদেবী বান্দারি এসএ গেমসের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।
তিন ঘণ্টা ১৪ মিনিটের জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পর্দা উঠবে আঞ্চলিক এই ক্রীড়াযজ্ঞের। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উড়তে শুরু করবে শান্তির প্রতীক পায়রা, ছুটতে শুরু করবে বিলুপ্তপ্রায় প্রাণী ‘ব্ল্যাকবাক’ হরিণ; যা ১৩তম দক্ষিণ এশিয়ান গেমসের লোগো ও মাসকট।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মার্চপাস্টে লাল সবুজের পতাকা বহন করবেন ২০১৬ সালের এসএ গেমসে জোড়া স্বর্ণ জয়ী সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা।
আজ শুরু হয়ে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ড কাঠমান্ডু, পোখরা ও জনকপুরে হবে এসএ গেমসের ১৩তম আসর। যেখানে অংশ নেবে সাতটি দেশের তিন হাজার ২৫০ জন অ্যাথলেট।
যার মধ্যে বাংলাদেশ থেকে ৫৯৫ জন, নেপালের ৬৪৮ জন, ভারতের ৪৬১ জন, পাকিস্তানের ৪১৩ জন, মালদ্বীপের ৩৩২ জন, ভুটানের ১৪২ জন ও শ্রীলঙ্কার ৬২২ জন রয়েছেন; যারা এক হাজার ১১৯টি পদকের জন্য লড়বে। পদকের মধ্যে সোনা ৩১৭টি, রুপা ৩১৭টি ও ব্রোঞ্জ ৪৭৯টি।
নিয়মানুযায়ী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আয়োজক দেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি তুলে ধরা হবে নানাভাবে। থাকবে লেজার শো, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। প্রত্যেক দেশের খেলোয়াড়দের মার্চপাস্ট তো থাকবেই।
১৯৮৪ ও ’৯৯ সালের পর তৃতীয়বারের মতো দক্ষিণ এশীয় অলিম্পিক খ্যাত এসএ গেমসের আয়োজন করতে যাচ্ছে নেপাল। তবে এবারের আয়োজনে আগের দুই আসরকেও ছাপিয়ে যেতে চায় কাঠমান্ডু। তাইতো তিনবার সময় বদলেছে তারা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আগের দিনও কাজ হয়েছে দশরথ স্টেডিয়ামে বাইরের অংশে। কিন্তু এতেও বাধা পড়েনি রঙিন উদ্বোধনে।
বিকেল পাঁচটায় শুরু হবে গেমসের উদ্বোধন। বিকেল পাঁচটার ঠিক আগে দশরথ রঙ্গশালায় প্রবেশ করবেন নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যাদেবী বান্দারি। এরপরই আসবেন প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি। আয়োজক কমিটি তাদেরকে ফুলের শুভেচ্ছায় স্বাগত জানাবে। এরপরেই হবে তিন মিনিটের লেজার শো। সাত দেশের ক্রীড়াবিদদের অংশগ্রহণে মার্চপাস্ট পর্যবেক্ষণ করবেন নেপালের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী।
নেপাল অলিম্পিক কমিটির প্রেসিডেন্ট জীবনরাম শ্রেষ্ঠা উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরুর ঘোষণ দেবেন। উদ্বোধনী ভাষণ দেবেন ন্যাশনাল স্পোর্টস কাউন্সিলের সদস্য সচিব রমেশকুমার সিলওয়াল। উপস্থিত থাকবেন ক্রীড়ামন্ত্রী জগত বাহাদুর বিশ্বকর্তা সুনার।
নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যাদেবী বান্দারীর উদ্বোধনী ভাষণের পরেই সাবেক চার তারকা অ্যাথলেট মশাল ব্যাটন নিয়ে স্টেডিয়ামে প্রবেশ করবেন। শেষে মশাল প্রজ্জ্বলন করে এসএ গেমসে আলো জ্বালাবেন চারবারের সোনাজয়ী সাবেক তায়কোয়ান্ডোকা দীপক বিষ্ঠা। ক্রীড়াবিদদের পক্ষ থেকে শপথ বাক্য পাঠ করবেন তারকা ক্রিকেটার পরেশ খড়কা এবং কোচদের পক্ষ থেকে রেফারি দীপক থাপা।
আগের ১২টি আসরের ১২টিতেই দাপটের সঙ্গে মেডেল তালিকার শীর্ষে ছিল ভারত। এবার অবশ্য তারা প্রায় দশটি ডিসিপ্লিনে অংশ নিচ্ছে না। পাকিস্তানও তাই। অন্যদিকে সার্কভুক্ত হওয়ার পর নবম আসর থেকে টানা চার আসরে অংশ নিয়ে এবার আর নিচ্ছে না আফগানিস্তান। তারা যোগ দিয়েছে মধ্য এশিয়ায়। তাই এসএ গেমসে তারা অংশ নেবে না।
সূত্র : মানবজমিন