পূর্ববাংলার সাবেক কমান্ডারকে গুলি করে গলা কেটে হত্যা

আপডেট: 09:03:59 09/07/2020



img

আনোয়ার হোসেন, মণিরামপুর (যশোর) : মণিরামপুরে রফিকুল ইসলাম রফি (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে দিনের বেলা গুলি করে ও গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
নিহত রফি এক সময় নিষিদ্ধঘোষিত পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির আঞ্চলিক কমান্ডার ছিলেন। পরে তিনি নিষিদ্ধ দল ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফেরেন। মৃত্যুর আগে তিনি ইজিবাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন।
বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার হাজিরহাট এলাকার দিগঙ্গা কুচলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাশে এই ঘটনা ঘটে।
নিহতের ডান বুকে ও ডান বাহুতে দুটি গুলির চিহ্ন এবং গলায় ধারালো অস্ত্রের কোপের দাগ রয়েছে।
খবর পেয়ে মণিরামপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করেছে। একই সঙ্গে মরদেহের পাশে পড়ে থাকা রফিকের ইজিবাইকটিও উদ্ধার করেছে পুলিশ।
নিহত রফিক উপজেলার মধুপুর গ্রামের মৃত আমারত আলীর ছেলে। একসময় তিনি খুব দুর্ধর্ষ ছিলেন বলে এলাকাবাসী জানান। তার নামে মণিরামপুর থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তবে গত কয়েকবছর ধরে তিনি ইজিবাইক চালিয়ে সংসার চালাতেন।
স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে সুন্দলি বাজারে যাত্রী নামিয়ে দিয়ে মণিরামপুরের দিকে ফিরে আসছিলেন রফিক। দিগঙ্গা-কুচলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাশে ফাঁকা স্থানে পৌঁছুলে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে লাশ ও ইজিবাইকটি ফেলে চলে যায়।
কুচলিয়া এলাকার ইউপি সদস্য প্রণবকুমার বিশ্বাস জানান, গুলির শব্দ শুনে মাঠে থাকা লোকজন এগিয়ে এসে রফিকের লাশ ও ইজিবাইকটি পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দেন। এরপর খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।
মণিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান জানান, কে বা কারা প্রকাশ্যে রফিককে গুলি করে ও গলা কেটে হত্যা করেছে তা এখনো জানা যায়নি। নিহত রফিকের নামে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তবে মামলাগুলো কী সংক্রান্ত তা এখনই বলা যাচ্ছে না।
পুলিশ লাশ ও ইজিবাইকটি উদ্ধার করে হেফাজতে নিয়েছে। হত্যার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে যশোর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম জানান, দুস্কৃতকারীরা কুশলিয়া গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা গুলি করে ইজিবাইক চালক রফিকুল ইসলামকে। গুলিবিদ্ধ হয়ে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন ও আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা করছে পুলিশ। বর্তমানে ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে বলেও জানান জেলা পুলিশের এই সিনিয়র অফিসার।

আরও পড়ুন