ভারতে একদিনে ৫০ চিকিৎসকের মৃত্যু

আপডেট: 11:02:26 18/05/2021



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (আইএমএ) তথ্যে দেখা গেছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রাণঘাতী দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতে ২৪৪ জন চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।
এদের মধ্যে রোববার ৫০ জনের মৃত্যু নথিবদ্ধ হয়েছে বলে মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনিটির তথ্যের বরাতে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।
কোভিড-১৯ এ ভারতে এ পর্যন্ত প্রায় এক হাজার চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে গত বছর সংক্রমণের প্রথম ঢেউয়ে ৭৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল আর চলতি বছর দ্বিতীয় ঢেউয়ে আরও ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।  
চলতি বছর সবচেয়ে বেশি চিকিৎসকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ভারতের বিহার রাজ্যে, এখানে ৬৯ জন মারা গেছেন। এরপর উত্তর প্রদেশে ৩৪ জন ও দিল্লিতে ২৭ জন মারা গেছেন।
সোমবার আইএমএর সাধারণ সম্পাদক ডা. জায়েশ লেলে এনডিটিভিকে বলেছেন, “গতকাল ভারতজুড়ে ৫০ জন চিকিৎসক মারা গেছেন আর এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ার পর থেকে ২৪৪ জন, যা খুবই দুর্ভাগ্যজনক।”
কোভিড রোগীদের চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত দিল্লির তেগ বাহাদুর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক আনাস মুজাহিদের (২৬) করোনাভাইরাস পজিটিভ আসার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তার মৃত্যু হয়। চলতি বছর মৃত্যু হওয়া চিকিৎসকদের মধ্যে তিনিই সবচেয়ে তরুণ বয়সী। টিকা নেওয়ার আগেই কোভিড-১৯ এ তার মৃত্যু হয়।
চলতি বছর ভারতজুড়ে যে ২৪৪ জন চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে মাত্র তিন শতাংশ টিকার দুটি ডোজই নিয়েছিলেন।
ভারতে পাঁচ মাস ধরে চলা টিকা কর্মসূচীর আওতায় এ পর্যন্ত ৬৬ শতাংশ স্বাস্থ্য কর্মীকে টিকার দুটি ডোজ দেওয়া সম্পন্ন হয়েছে।
আইএমএ জানিয়েছে, তারা টিকা নেওয়ার জন্য চিকিৎসকদের উৎসাহিত করতে সম্ভাব্য সব ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে।
অনেক চিকিৎসক টিকা নিচ্ছেন না এমনটি দেখে সামনের সারিতে যে চিকিৎসকরা আছেন তারা যেন অবশ্যেই টিকা নেন তা নিশ্চিত করতে আইএমএ তাদের পক্ষে সম্ভব সবকিছু করছে বলে জানিয়েছেন ডা. লেলে।
এনডিটিভি জানিয়েছে, আইএমএ কোভিড-১৯ এ ভারতে প্রায় এক হাজার চিকিৎসকের মৃত্যুর কথা জানালেও প্রকৃত সংখ্যা আরও অনেক বেশি হতে পারে, কারণ ভারতে ১২ লাখেরও বেশি চিকিৎসক থাকলেও আইএমএ তাদের প্রায় সাড়ে তিন লাখ সদস্যের তথ্যই শুধু নথিবদ্ধ করে।
সূত্র : বিডিনিউজ

আরও পড়ুন