মণিরামপুরে করোনা আক্রান্ত একশ' পার

আপডেট: 01:35:14 06/08/2020



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরে নতুন ১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ব্যাংকার, নার্স, স্বাস্থ্যসহকারী ও মেডিকেল রিপ্রেজেনটেটিভ রয়েছেন। এই নিয়ে মণিরামপুরে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গেল।
মণিরামপুর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. অনুপকুমার বসু এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
নতুন আক্রান্ত ১২ জন হলেন, যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ রায়ের বোন কামালপুর গ্রামের বাসিন্দা রীতারানী (৫৫), তার স্বামী অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা রামকৃষ্ণ শীল (৬২), কেশবপুর সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র কর্মকর্তা মণিরামপুরের হরিণা গ্রামের বাসিন্দা সুমন রায় (২৯), খুলনায় কর্মরত ওরিয়ন ফার্মার মেডিকেল রিপ্রেজেনটেটিভ মণিরামপুরের মুজগুন্নি গ্রামের বাসিন্দা হাসান আলী (২৬), চালুয়াহাটি ইউনিয়নের রতনদীয়া গ্রামের স্বাস্থ্য সহকারী আব্দুর রাজ্জাক (৩৮), খুলনার কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স মণিরামপুরের তাহেরপুর এলাকার বাসিন্দা হ্যাপি রায় (৪৫), মোহনপুর এলাকার রোজিয়া সুলতানা (৩৮), মণিরামপুর পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা হিমাংশু বিশ্বাস (৫৫) ও রেখা সাহা (৬৫), খেদাপাড়া গ্রামের চন্দন ব্যানার্জি (৩২) ও রিনা ব্যানার্জি (৫০) এবং কেশবপুর শহরের বাসিন্দা তপন পাল (৫৬)। তপন কেশবপুরের বাসিন্দা হলেও মণিরামপুর হাসপাতালে নমুনা দিয়েছিলেন।
ডা. অনুপ বলেন, গত সোমবার (৩ আগস্ট) মণিরামপুর হাসপাতালে ৩০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে সিভিল সার্জন অফিসের মাধ্যমে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সেন্টারে পাঠানো হয়। আজ বৃহস্পতিবার তাদের মধ্যে দশ জনের করোনা পজেটিভ রিপোর্ট এসেছে। এছাড়া একই দিনে কেশবপুর হাসপাতালে মণিরামপুরের সুমন রায় ও হাসান আলী নামে দুই ব্যক্তি নমুনা দেন। আজ তাদেরও পজেটিভ রিপোর্ট এসেছে।
ডা. অনুপ জানান, মণিরামপুর হাসপাতাল থেকে এই পর্যন্ত ৫৫৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এছাড়া এই অঞ্চলের অনেকে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, যশোর জেনারেল হাসপাতাল এবং খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নমুনা দিয়েছেন। তাদের মধ্যে মণিরামপুরে মোট ১০৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ইতিমধ্যে ৮১ জন সুস্থ হয়েছেন। বাকিরা নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

আরও পড়ুন