মণিরামপুরে কোয়ারেন্টাইনে থাকা যুবকের সর্দি-কাশি

আপডেট: 02:05:01 29/03/2020



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরের কোদলাপাড়ায় মালয়েশিয়া ফেরত কোয়ারেন্টাইনে থাকা এক যুবক সর্দি, কাশি ও গলা ব্যথায় ভুগছেন। শনিবার বিকেলে এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর এলাকাবাসী দুশ্চিন্তায় আছেন।
স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীর মাধ্যমে ওই যুবকের চিকিৎসা চলছে।
সরেজমিন জানা গেছে, ওই যুবক গত ১৮ মার্চ মালয়েশিয়া থেকে ফিরে আসেন। এরপর তিনি অবাধে চলাফেরা শুরু করেন। পরে বাড়িতে লাল নিশান টানিয়ে তাকে কোয়ারেন্টাইনে যেতে বাধ্য করা হয়। গত শুক্রবার (২৭ মার্চ) রাতে সর্দি, কাশি ও গলা ব্যথা শুরু হয় তার।
শনিবার সকালে খবর পেয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মী রাশিদা আক্তার ওই বাড়িতে গিয়ে রোগীর সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শুভ্রারানী দেবনাথকে জানান। ডা. শুভ্রার দেওয়া ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ওই যুবককে চিকিৎসা দেওয়া শুরু করেন রাশিদা আক্তার। এখন ওই যুবক সুস্থ রয়েছেন বলে জানান রাশিদা আক্তার।
বিদেশফেরত ব্যক্তি সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হওয়ায় এলাকার কারো কারো মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। তারা বিষয়টি দায়িত্বশীল বিভিন্ন ব্যক্তিকে ফোনে জানাচ্ছেন। কেউ ওই বাড়ির আশপাশেও যাচ্ছেন না।
তবে স্বাস্থ্যকর্মী রাশিদা আক্তার বলেন, হাসপাতালের ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী চিকিৎসা চলছে। ওই যুবক এখন বেশ সুস্থ।
এদিকে, ভারত থেকে এক দম্পতি তাদের শিশু সন্তানকে নিয়ে উপজেলার হরিদাসকাঠি ইউপির লেবুগাতী গ্রামে বেড়াতে এসেছেন কয়েক দিন আগে। তাদেরকে কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা এলাকাবাসী বলছেন। কিন্তু তারা অবাধে চলাফেরা করছেন। একপর্যায়ে তাদের শিশু সন্তানটি ঠান্ডাজ্বরে আক্রান্ত হলে এলাকাবাসী শঙ্কিত হয়ে পড়েন।
স্থানীয়রা বলছেন, হাসপাতালে ফোন করে জানানো হলে দুইজন স্বাস্থ্যকর্মী এসে তাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়ে যান। কিন্তু তারা মানছেন না।
জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. শুভ্রারানী দেবনাথ বলেন, কোদলাপাড়ার ওই যুবকের চিকিৎসা চলছে। আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। আর হরিদাসকাঠির লেবুগাতির জ্বরে আক্রান্ত শিশুটির খোঁজ নিয়েছেন স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মীরা। তাদের মাধ্যমে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে শিশুটিকে। এখন অবস্থা ভালো।
শিশুটির বাবা-মা কোয়ারেন্টাইন না মানলে পুলিশের মাধ্যমে মানাতে বাধ্য করা হবে বলে জানান এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।
এই পর্যন্ত মণিরামপুরে ২০৭ জন বিদেশফেরতকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠাতে সক্ষম হয়েছেন প্রশাসন। যাদের মধ্যে দুইজনের কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হয়েছে।

আরও পড়ুন