মণিরামপুরে তুঁতে পানে গৃহবধূর আত্মহত্যা

আপডেট: 02:35:54 05/11/2019



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরে স্বামীর ওপর অভিমান করে ‘তুঁতে পান করে’ আত্মহত্যা করেছেন সাথী মল্লিক (২৩) নামে এক গৃহবধূ। তিনি উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের কৃষ্ণ বকসির স্ত্রী।
এই ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী মণিরামপুর থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন। মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) সকালে থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।
মণিরামপুর থানার এসআই আশরাফুল আলম জানান, স্বামী কৃষ্ণকে নিয়ে একই উপজেলার নেবুগাতী গ্রামে বাবা মান্দার মল্লিকের বাড়িতে ছিলেন সাথী মল্লিক। সেখানে স্বামীর সঙ্গে কথাকাটাকাটি হলে শুক্রবার (৩১ অক্টোবর) বিকেলে তুঁতে পান করেন তিনি। দ্রুত তাকে মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন স্বজনরা। চিকিৎসায় কিছুটা সুস্থ হলে তাকে নেবুগাতী বাবার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। গত রোববার (৩ নভেম্বর) আবার অসুস্থ হয়ে পড়লে রাত সাড়ে নয়টার দিকে তাকে খুলনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল দশটার দিকে মৃত্যু হয় সাথীর। পরে তার মরদেহ নেবুগাতী গ্রামে বাবার বাড়িতে আনা হয়।
মণিরামপুর থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) শিকদার মতিয়র রহমান বলেন, ‘খবর পেয়ে সোমবার রাতেই ফোর্স নিয়ে আমি ঘটনাস্থলে গেছি। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। এই ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।’

আরও পড়ুন