মহেশপুরে প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনা টাকায় রফা!

আপডেট: 06:20:49 11/08/2020



img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : মহেশপুরে মা ও শিশু ক্লিনিকে হাতুড়ে ডাক্তারের অস্ত্রোপচারে মরিয়ম খাতুন (৩০) নামে এক প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনা টাকায় রফা হয়েছে।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সামছুল হক মৃধার মাধ্যমে এক লাখ ৩০ হাজার টাকা দিয়ে মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ।
গত সোমবার সন্ধ্যায় নেপা ইউনিয়ন পরিষদে মরিয়ম খাতুনের পরিবারের সদস্য ও নেপা মোড়ে অবস্থিত অবৈধ স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ‘মা ও শিশু ক্লিনিক’-এর মালিক পক্ষ বসে এ রফা করেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইউপি সদস্য জানান, ভাড়া করা নেশাগ্রস্ত ডাক্তার সোহেল রানাকে দিয়ে সীমান্ত এলাকায় ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা ক্লিনিক নামধারী কসাইখানাগুলোর মালিকরা অপারেশন করার কারণেই এলাকায় এতো প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘একের পর এক প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনা ঘটলেও স্বাস্থ্য বিভাগের কোনো মাথাব্যথা নেই।’
তার অভিমত, ঝাড়ুদার হয়েছে নার্স। আর সুইপার যদি আয়া হয় আর ভাড়া করা ডাক্তার দিয়েই দিয়ে যদি ক্লিনিকগুলো চালানো হয়, তাহলে মৃত্যুর মিছিল কেউ ঠেকাতে পারবে না।
নেপা ইউপি চেয়ারম্যান সামছুল হক মৃধা জানান, নেপা মোড়ের মা ও শিশু ক্লিনিকে ভুল সিজার অপারেশন করায় মরিয়ম খাতুন নামে ওই প্রসূরি করুণ মৃত্যু হয়। এঘটনায় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বসে মা ও শিশু ক্লিনিকের মালিককে এক লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
তিনি স্বীকার করেন, এলাকার কোনো ক্লিনিকে ডাক্তার ও প্রশিক্ষিত নার্স নেই। তা সত্ত্বেও ক্লিনিকগুলো কীভাবে চলছে, তা তার জানা নেই।
গত রোববার রাতে মহেশপুরের সীমান্ত এলাকার নেপা মোড়ে ‘মা ও শিশু ক্লিনিকে সিজার অপারেশন করার সময় মরিয়ম খাতুন নামে ওই প্রসূতির মৃত্যু হয়। পরে ক্লিনিকের মালিক পালিয়ে যান।

আরও পড়ুন