মুশতাক 'হত্যার' বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি অমিতের

আপডেট: 10:04:15 06/03/2021



img

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেছেন, বিএনপির আন্দোলন দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার। এই আন্দোলনে সম্পৃক্ত হওয়ার কারণে সাংবাদিক মুশতাক আহমেদকে জীবন দিতে হয়েছে। এই আন্দোলন মনে-প্রাণে ধারণ করতেন বলে সাংবাদিক সাগর, রুনি হত্যার কোনো বিচার হয়নি।
তিনি বলেন, দেশের মানুষ বিশ্বাস করে তারেক রহমানের নেতৃত্বে দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে। কারণ তারা জানে, তার বাবা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ঘোষণায় মহান স্বাধীনতাযুদ্ধের সূচনা হয়েছিল। তিনি রণাঙ্গনের বীর যোদ্ধা হিসেবে ১১টি সেক্টর কমান্ডারদের মধ্যে ব্যতিক্রম হিসেবে দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করে স্বাধীনতা নিশ্চিত করেছিলেন। যখন বাংলাদেশ দিশাহীন সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে বিদেশি অনুচর ঢুকে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নিয়ে ছিনিমিনি খেলছিল, তখন সিপাহী জনতার বিপ্লবের মধ্য দিয়ে তিনি ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে আবির্ভূত হয়েছিলেন।
শনিবার বিকেলে লেখক ও সাংবাদিক মুশতাক আহমেদ এবং সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে যশোর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।
অমিত লেখক অ্যাক্টিভিস্ট মুশতাক আহমেদ 'হত্যার' বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানান। পাশাপাশি বোরহান উদ্দিন মুজাক্কিরের মতো যেন আর কোনো সাংবাদিককে সংবাদ সংগ্রহের ‌'অপরাধে' জীবন দিতে না হয় তার নিশ্চয়তা বিধানের দাবি জানান।
স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রবিউল ইসলামের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যদের মধ্যে জেলা বিএনপির আহবায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম, যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন, মোস্তফা আমির ফয়সাল, আবু তালেব, আলী হায়দার রানা, নির্মলকুমার বিট, মারুফুজ্জামান কাঞ্চন, কামরুজ্জামান বাপ্পি প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

আরও পড়ুন